ঢাকা গ্রীণ লাইফ হাসপাতালে ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে কুলাউড়া উপজেলার পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মধুসুদন পাল চৌধুরীর সহধর্মীনি মুক্তি পাল চৌধুরী পরলোক গমন

স্টাফ রিপোটারঃ
মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মধুসুদন পাল চৌধুরীর সহধর্মীনি মুক্তি পাল চৌধুরী ঢাকার বাসভবনে ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হলে তাকে চিকিৎসার জন্য ঢাকা গ্রীণ লাইফ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
গত ২০ আগষ্ট সকাল ৯ টা ৩০ মিনিটে ঢাকা গ্রীণ লাইফ হাসপাতালে চিকিৎসা অবস্থায় ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে পরলোক গমন করেন। পরে ঢাকা থেকে মুক্তি পাল চৌধুরী লাশ তাদের হবিগঞ্জের মাষ্টার কোয়াটার বাসভবনে নিয়ে এলে এলাকায় এক শোকের ছায়া নেমে আসে। এলাকার লোকজন ও মুক্তি পাল চৌধুরী স্বামীর কর্মস্থল কুলাউড়া থেকে পরিবার পরিকল্পনা ও স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ হবিগঞ্জে গিয়ে তাকে একনজর দেখার জন্য ও শোক বাতা জানাতে তার বাসভবনে ভীর জমান । ঐদিন রাতেই নিহত মুক্তি পাল চৌধুরীর অন্তষ্টিক্রিয়া তাদের গ্রামের বাড়ি হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার আনন্দপুর গ্রামে অনুষ্টিত হয়।
মৃত্যুকালে মুক্তি পাল চৌধুররী বয়স হয়েছিলো ৪৬ বছর। তিনি স্বামী, ১ ছেলে ,১ মেয়েসহ অসংখ্য আত্বীয় স্বজন ও গ্রনগ্রাহী রেখে গেছেন ।
এদিকে মুক্তি পাল চৌধুরীর মৃত্যুতে গভীর শোক ও শোকস্বনপ্ত পরিবারের প্রতি আত্বার শান্তি কামনা করে শোক প্রকাশ করেছেন ডাকসুর সাবেক ভিপি, ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি, আওয়ামীলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক, মৌলভীবাজার-২ (কুলাউড়া) আসন এর সাংসদ, বিশেষ অধিকার সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য জাতীয় নেতা সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমদ, কুলাউড়ান উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন সম্পাদক অধ্যক্ষ সফি আহমদ সলমান, পৌর মেয়র সফি আলম ইউনুছ, কুলাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ নুরুল হক, আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ জাকির হোসেন, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এমওএমসিএইচপিও ডাঃ সুলতান আহমদ, ইউকে কুলাউড়া সমিতির সভাপতি আওয়ামীলীগ নেতা মোস্তফা আব্দুল মালিক, ডাঃ ফাহমিদা ফারহানা খান, কুলাউড়া প্রেসক্লাব সভাপতি এম শাকিল রশীদ চৌধুরী ও সাধারন সম্পাদক মোঃ খালেদ পারভেজ বখশ,সহকারি পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মোঃ লিয়াকত আলী,সাবেক পরিবার পরিকল্পনা পরিদর্শক মীর লাল দেবরায় সহ পরিবার পরিকল্পনা ও স্বাস্থ্য বিভাগের সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ ।

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন