আদর্শ স্বামী চিনতে পারেন ৭ লক্ষণে

382
gb

জিবিনিউজ ডেস্ক:: দেখতে সুদর্শন হলেই কী আদর্শ স্বামী হওয়া যায়! না সুদর্শন স্বামী আর আদর্শ স্বামী ব্যাপারটা সম্পূর্ণ ভিন্ন। আদর্শ স্বামী হতে হলে অবশ্যই তার কিছু গুণ থাকতে হবে। আপনি আপনার স্বামীর আচারণেই বুঝতে পারবেন তিনি কতটা সংসারপ্রিয়।

আসুন জেনে নেই কীভাবে চিনবেন আদর্শ স্বামী।

সমস্যা সমাধানে সর্বদা প্রস্তুত:

আদর্শ স্বামীর সবচেয়ে একটি বড় গুণ হলো তিনি সংসারজীবনের যেকোনো বিপদ খুব ভালোভাবেই মোকাবেলা করার ক্ষমতা রাখেন। যেকোনো সমস্যা সমাধানে সর্বদা প্রস্তুত থাকেন।

রান্না করা:

আদর্শ স্বামীর একটি বড় গুণ হলো তিনি রান্নাও করেন। কিন্তু আমাদের দেশের বেশির ভাগ ছেলেরা মনে করেন, রান্না মেয়েদের কাজ। এটি সম্পূর্ণ ভুল ধারণা। মনে রাখবেন রান্না একটি শিল্প। স্বামী-স্ত্রী উভয় কর্মজীবী হলে দুজন-দুজনাকে সহযোগিতা করবেন। তাই রান্নার কাজটি দুজনে ভাগ করে নিতে পারেন।

খোলামেলা আলোচলা:

সংসারজীবনে চলার পথে ভুলভ্রান্তি হতেই পারে। আদর্শ স্বামীর সবচেয়ে বেড় গুণ হলো তিনি সবকিছু খোলামেলা আলোচনা করে সমাধানের চেষ্টা করেন।

স্ত্রীর মন বোঝা:

আদর্শ স্বামী সব সময় স্ত্রীর মন বোঝার চেষ্টা করে। কি পছন্দ , কি অপছন্দ এই বিষয়গুলো তিনি ভালোভাবে খেয়াল করেন। কিসে অসুস্থ হয়ে যান কিংবা কী পেলে খুশি হন এগুলো তার ঠিকই মনে থাকবে।

জ্ঞানী ও বুদ্ধিমান:

শুধু সুদর্শনই নন আদর্শ স্বামী অবশ্যই জ্ঞানী ও বুদ্ধিমান হবেন। স্বামী যদি জ্ঞানী ও বুদ্ধিমান না হন তবে সংসার করা বড় কঠিন।

স্ত্রীর মন খারাপ:

স্ত্রীর মন খারাপ থাকলে আদর্শ স্ত্রী অবশ্যই বুঝতে পারবেন। যখন আপনার মন খারাপ থাকে কিংবা কোনো বিষয়ে বিরক্ত হন তখন এক নিমিষেই তিনি আপনার মন ভালো করে দেন।

সম্পর্ক বন্ধুর:

স্বামী ও স্ত্রীর সম্পর্ক বন্ধুর মতো হওয়া উচিত। আদর্শ স্বামী স্ত্রীর মত বা সিদ্ধান্তকে গুরুত্বসহকারে নিয়ে থাকেন এবং সেটা বুঝে কাজ করারও চেষ্টা করেন।