নিউজিল্যান্ডে করোনাভাইরাস মোকাবেলা করে জনপ্রিয়তার তুঙ্গে উঠেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী জাসিন্দা আরদার্ন

74
gb

মো: নাসির নিউ জার্সি, আমেরিকা থেকে ||

নিউজিল্যান্ডে করোনাভাইরাস মোকাবেলা করে জনপ্রিয়তার তুঙ্গে উঠেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী জাসিন্দা আরদার্ন।
এক জরিপে তাকে নিউজিল্যান্ডের ইতিহাসে শতাব্দীর সেরা নেত্রী হিসেবে দেখা গেছে। নিউজিল্যান্ড হেরাল্ডের জরিপে দেখা গেছে, দেশটির ৫৯ দশমিক ৫ শতাংশ নাগরিক জাসিন্দাকে এখনও দেশের প্রধান হিসেবে চান। ফেব্রুয়ারিতে করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাব শুরুর সময় করা একটি জরিপে তার জনপ্রিয়তা ছিল ২০ দশমিক ৮ শতাংশ।

নিউজিল্যান্ডে করোনার প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়ার পরপরই কঠোর ব্যবস্থা নেন জাসিন্দা। গত ২৪ মার্চ তিনি পুরো দেশ লকডাউন জারি করেন।

করোনা সংক্রমণ প্রায় শূন্যে নেমে আসা নিশ্চিত করেই লকডাউন শিথিল করছে দেশটি। নিউজিল্যান্ডে এক হাজার ৪৯৯ জন আক্রান্ত এবং মাত্র ২১ জন মারা গেছেন।

নিউজিল্যান্ড হেরাল্ডের জরিপ বলছে, করোনা মোকাবেলায় জাসিন্দার কর্মকাণ্ডের প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন দেশটির ৫৬ দশমিক ৫ শতাংশ নাগরিক। আগামী ১৯ সেপ্টেম্বরে দেশটিতে সাধারণ নির্বাচন। জরিপ বলছে, এখনই নির্বাচন হলে জাসিন্দার লেবার পার্টি ২৪টি আসন বেশি পাবে।

এদিকে নিউজিল্যান্ডে প্রায় দুই মাস পর স্কুল খুলেছে। সোমবার দীর্ঘ আট সপ্তাহ পর বন্ধুদের সঙ্গে দেখা পেয়েছে শিশুরা। তাদের পিতামাতারা বাচ্চাদের চুমু দিয়ে স্কুলে পাঠাচ্ছেন এমন ছবি প্রকাশ করেছে রয়টার্স। স্কুলের ভেতরে শিশুদের প্রথম পাঠ হিসেবে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা, হাত ধোয়া ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করা শেখানো হচ্ছে। নিউজিল্যান্ডের শিক্ষামন্ত্রী ক্রিস হিপকিন্স বলেন, স্কুলগুলোতে কোলাহল ফিরেছে।

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন