অপরাধ করিনি, আমার ভয়ের কিছু নেই -মুক্তিযোদ্ধা এম এ মোঈদ ফারুক

128
তানজির হমেদ রাসেল  ||
শীঘ্রই স্থানীয় সরকার সরকার বিভাগের দেয়া শোকজ নোটিশের জবাব দেবেন বলে জানিয়েছেন মৌলভীবাজার জেলার জুড়ী উপজেলা পরিষদের চেয়ার‌ম্যান মুক্তিযোদ্ধা এম এ মোঈদ ফারুক। তিনি বলেন, আমি অপরাধ করিনি তাই আমার ভয়ের কিছু নেই। আমি জবাবের প্রস্তুতি নিচ্ছি । এম এ মোঈদ ফারুক বলেন, আমার জনপ্রিয়তায় ঈর্শান্বিত হয়ে একটি মহল আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে এমন অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটিয়েছে। এটা সম্পূর্ণ পূর্ব পরিকল্পিত। আমি রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার।
গত ১লা মে উপজেলার আমতৈল গ্রামে বন্ধু পোলট্রি ফার্মে ঘটে যাওয়া অনাকাঙ্খিত ঘটনার বিবরণ দিতে গিয়ে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, ঘটনার দিন সকালে জুড়ীতে প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে উপহার পাওয়া দু’টি কম্বাইন হার্ভেস্টার হস্তান্তর করা হয়। সেদিন রাতে আমতৈল এলাকার স্থানীয় বাসিন্দাদের আমস্ত্রণে আমি কম্বাইন হার্ভেস্টার দেখতে সেখানে যাই।
আপনার নেতৃত্বে হামলা ও গণজমায়েত সৃষ্টি হয়েছে, এমন প্রশ্নের জবাবে এম এ মোঈদ ফারুক বলেন, আমি সেখানে কোনো গণজমায়েত সৃষ্টি করিনি, আমরা মাত্র দু’জন লোক সেখানে গিয়েছি । দীনবন্ধু সেনের পোলট্রি ফার্মের সামনে কম্বাইন হার্ভেস্টারটি রাখা ছিল। আমার উপস্থিতির খবর পেয়ে স্থানীয় বাসিন্দারা জড়ো হয়ে পোলট্রি ফার্মের দুর্গন্ধে পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন। এর আগেও স্থানীয় বাসিন্দারা পোলট্রি ফার্মের দুর্গন্ধে পরিবেশ নষ্টসহ এলাকার বাসিন্দাদের নানাবিধ সমস্যা হচ্ছে মর্মে আমার কাছে এবং সংশ্লিষ্ট কার্যালয়ে লিখিত অভিযোগ করেছিল। এ বিষয়টি নিয়ে আদালতে দুই পক্ষের মামলাও রয়েছে। বিষয়টি যেহেতু আদালতে বিচারাধীন সেহেতু আমার নেতৃত্বে হামলা আর ভাঙচুরের প্রশ্নই উঠে না।
ঘটনার বর্ণনায় এম এ মোঈদ ফারুক আরোও বলেন, পোলট্রি ফার্মের সামনে কথা বলার এক পর্যায়ে অজ্ঞাত ব্যক্তির ছোঁড়া ঢিলে বদরুল নামের এক লোক আহত হলে উপস্থিত লোকজনের মধ্যে ক্ষোভের সঞ্চার হয়। তারা পোলট্রি ফার্মের বাইরের নেট ছিঁড়ে ফেলে।  একপর্যায়ে সেখানে দুই পক্ষের মধ্যে মারামারি শুরু হলে কিছু লোক ফার্মে  ভাঙচুরের ঘটনা ঘটায়। তখন আমি অনেক কষ্টে সবাইকে আইনের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শনের অনুরোধ জানিয়ে নিবৃত করি এবং অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে সেখানে উপস্থিত দীনবন্ধুসহ সবাইকে যার যার বাড়ীতে চলে যেতে বলি। পরে আমি পুলিশ ও অ্যাম্বুলেন্স ফোন দিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবার অনুরোধ করি এবং সেখানে থাকা হার্ভেস্টার মেশিনের টুলবক্স ও ফার্মের একটি জেনারেটর স্থানীয় এক ব্যক্তির জিম্মায় রেখে পার্শ্ববর্তী সাইদুলের বাড়ীতে চা খেতে যাই।  এম  এ মোঈদ ফারুক বলেন,  সেখানে থেকেই আমি জানতে পারি আমার নির্বাচনী প্রতিপক্ষের লোকজন ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ঘটনাকে ভিন্ন খাতে প্রভাবিত করতে লোকজনকে নানাভাবে প্ররোচিত করছে। পরে জানলাম শাহাজান নামে স্থানীয় এক বাসিন্দাও আহত হয়েছেন। আমি ফার্ম থেকে সাইদুলের বাড়িতে যাওয়ার ২ মিনিটের মধ্যে কিভাবে ৭/৮ মাইল দুর থেকে আমার নির্বাচনী প্রতিপক্ষের লোকজন ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলো, তা সত্যিই অবাক করার মতো। এ থেকেই প্রমাণিত হয় ফার্মে হামলা ও ভাঙচুরসহ সম্পূর্ণ  ঘটনাটি পূর্বপরিকল্পিত ।
উপজেলা চেয়ারম্যান বলেন, আমি জুড়ীবাসীর কাছে কৃতজ্ঞ । তাঁরা  গত উপজেলা নির্বাচনে আমাকে বিশাল ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী করেছেন। নির্বাচনে বিজয়ের পর একটি মহল আমার রাজনৈতিক কর্মকান্ড ও জনপ্রিয়তায় ঈর্শান্বিত হয়ে আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য প্রতিনিয়ত ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। কিন্তু আমি মুক্তিযোদ্ধা, কোনো ষড়যন্ত্রকে আমি ভয় করি না। জুড়ীবাসীর কাছে ষড়যন্ত্রের বিষয়টি পরিস্কার হয়ে গেছে । স্থানীয় সরকার বিভাগ সরেজমিন নিরপেক্ষ তদন্ত করলে বিষয়টি বুঝতে পারবে। তিনি আগামীর পথ চলায় জুড়ীবাসীর সার্বিক সহযোগিতা কামনা করে বলেন, জুড়ীবাসীকে সঙ্গে নিয়ে আইনীভিাবে সকল ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করবেন।
উল্লেখ্য,  গত ১ লা মে উপজেলার পশ্চিম জুড়ী ইউনিয়নের আমতৈল গ্রামের বন্ধু পোলট্রি ফার্মে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। ২ মে এ ঘটনায় পোলট্রি ফার্মের মালিক দীনবন্ধু সেন বাদী হয়ে জুড়ী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এম এ মোঈদ ফারুকসহ ১২ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। ৫ মে জুড়ী উপজেলা পরিষদের চেয়ার‌ম্যান এম এ মোঈদ ফারুককে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগ বন্ধু পোলট্রি খামারে হামলা, ভাঙচুর, ধান কাটার হারভেস্টার মেশিন ভাঙচুর এবং করোনা পরিস্থিতিতে গণজমায়েত সৃষ্টির অভিযোগে কারণ দর্শানোর চিঠি দেয়।  এদিনই জুড়ী উপজেলা পোলট্রি ফার্ম এসোসিয়েশনের সভাপতি হারিছ মোহাম্মদ এক সংবাদ সম্মেলনে আসামীদের গ্রেফতারের দাবি জানান। পরদিন ৬ মে আমতৈল গ্রামের ভুক্তভোগীরা সংবাদ সম্মেলন করে পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিবন্ধন ছাড়া অবৈধভাবে গড়ে উঠা বন্ধু পোলট্রি ফার্মের দুর্গন্ধে এলাকার পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে উল্লেখ করে ফার্মটি বন্ধের দাবি জানান।