ট্রাম্পের মুসলিমবিরোধী টুইট, ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী দপ্তরের প্রতিবাদ

168
gb

জিবিনিউজ24 ডেস্ক:

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে তিনটি বিস্ফোরক মন্তব্য এবং ভিডিও রিটুইট করা হয়েছে। একটি ব্রিটিশ কট্টরপন্থী সংগঠনের পক্ষ থেকে ওই টুইটগুলো করা হয়।

পরে সেগুলোকে রিটুইট করেন ট্রাম্প।

এ ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়েছে যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর। যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে-র মুখপাত্র বলেন, ট্রাম্পের এ ভিডিওগুলো শেয়ার করা ভুল পদক্ষেপ। তিনি আরও বলেন, এ ধরনের ঘৃণামূলক বক্তব্য সমাজের বিভিন্ন অংশের মাঝে বিভেদ বাড়াবে এবং মিথ্যার ওপর দাঁড়িয়ে তা উত্তেজনা বৃদ্ধি করবে।

যুক্তরাজ্যের কনজারভেটিভ সরকারের একজন সিনিয়র সদস্য সাজিদ জাভিদও ট্রাম্পের এ টুইটের নিন্দা করেছেন। তিনি টুইট বার্তায় জানান, বর্ণবাদী সংস্থার ঘৃণামূলক বক্তব্য প্রচার করা ভুল। তিনি ভুল কাজ করেছেন এবং আমি এর বিরুদ্ধে কিছু না বলে পারছি না।
প্রথম টুইটটি আসে ‘ব্রিটেন ফার্স্ট’ নামক একটি সংগঠনের প্রধান জেদা ফ্রানসেন এর অ্যাকাউন্ট থেকে। মন্তব্যে থাকা ভিডিও লিংকে ‘একজন মুসলিম কর্তৃক ক্রাচ ব্যবহারকারী একজনের ওপর হামলার দৃশ্য’ রয়েছে বলে দাবি করা হয়।

পরবর্তীতে আরও দুটি আইনশৃঙ্খলা বিরোধী কাজের ভিডিও লিংক পোস্ট করে সেগুলোর দায়ে মুসলিমদের অভিযুক্ত করেন ফ্রানসেন।

প্রসঙ্গত, কট্টরপন্থী জাতীয়তাবাদী সংগঠন ব্রিটিশ ন্যাশনালিস্ট পার্টি (বিএনপি)’র সাবেক কয়েকজন সদস্য ২০১১ সালে ব্রিটেন ফার্স্ট সংগঠনটি প্রতিষ্ঠা করেন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মুসলিমবিরোধী পোস্ট শেয়ারের মাধ্যমে ইতোমধ্যে ব্রিটেনে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে ব্রিটেন ফার্স্ট।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি লন্ডনে অনুষ্ঠিত মেয়র নির্বাচনে অংশ নেয় সংগঠনটি। ওই নির্বাচনে শতকরা মাত্র এক দশমিক দুই শতাংশ ভোট পায় তারা। টুইটারে বায়ান্ন হাজারের বেশি ফলোয়ার রয়েছে ফ্রানসেনের।

বেশ উৎসাহের সঙ্গে তিনি নিজ টুইটারে লিখেছেন, ‘ডোনাল্ড ট্রাম্প নিজে এই ভিডিওগুলো শেয়ার করেছেন এবং ৪৪ মিলিয়ন ফলোয়ারের কাছে তা পৌঁছে গেছে। ‘

তিনি আরও বলেন, ‘ঈশ্বর আপনার মঙ্গল করুন ট্রাম্প! ঈশ্বর আমেরিকার সহায় হোন!’ এই মেসেজটি শেয়ার করা হয়েছে ব্রিটেন ফার্স্টের টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকেও।

চলতি মাসের শুরুর দিকে বেলফাস্টে এক বক্তব্যে ‘হুমকিবাহী, কুরুচিপূর্ণ এবং অপমানজনক’ কথাবার্তার দায়ে অভিযুক্ত করা হয়েছিল ফ্রানসেনকে।