সাতক্ষীরার ভোমরা স্থল বন্দরে পেঁয়াজের বাজারে আগুন, দাম বেড়েছে প্রতি কেজিতে ৪০ থেকে ৫০ টাকা, খুব্ধ স্বল্প আয়ের মানুষ

58
gb

শাহীন গোলদার,সাতক্ষীরা//

ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি পুরোপুরি বন্ধ হওয়ার দিনের ব্যবধানে পেঁয়াজ দাম বেড়ে হয়েছে ডবল। প্রতি কেজিতে বৃদ্ধি পেয়েছে ৪০-৫০ টাকা। এতে বিপাকে পড়েছে ভোমরা বন্দরে ক্রয় করতে আসা পাইকারীরা। আর খুচরা বাজারে কেজি প্রতি ১১০ থেকে বিক্রি হচ্ছে ১২০ টাকায়। এতে বিপাকে পড়েছেন বন্দরে পেঁয়াজ কিনতে আসা পাইকাররা। সাতক্ষীরা ভোমরা স্থলবন্দরের আমদানিকারদের অভিযোগ,ভারত সরকার পেঁয়াজ রপ্তানি পুরোপুরি বন্ধ করে দেওয়ায় প্রভাব পড়েছে সাতক্ষীরার ভোমরা স্থলবন্দরের পাইকারি ও খোলা বাজারে। রাতারাতি পেঁয়াজ দাম বাড়িয়ে দেই আমদানিকারক, আড়তদার ও দোকানিরা। ফলে গত ২৪ ঘন্টার ব্যবধানে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে কেজিতে ৪০ থেকে ৫০ টাকা। ফলে খুচরা বাজারে দেশী পেঁয়াজ কেজি প্রতি বিক্রি হচেছ ১০০-১১০ যা আগে বিক্রি হতো ৫০-৬০ টাকা আর ভরতীয় পিয়াজ বিক্রি হচেছ ৯০-১০০ টাকা যা কয়েকদিন আগে বিক্রি হয়েছে ৪০ থেকে ৫০ টাকা দরে। পেঁয়াজ এই বাড়তি দামে ক্ষুবদ্ধ ক্রেতা ও বিক্রেতারা । এর আগেও ভারতের বাজারে পেঁয়াজের দাম বাড়তে থাকায় গত ১৩ সেপ্টেম্বর দেশটির বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের বৈদেশিক বাণিজ্য শাখা প্রতি মেট্রিক টন পেঁয়াজের ন্যূনতম রপ্তানি মূল্য ৩৫০ টাকা থেকে ৮৫০ ডলার নির্ধারণ করে দেয়। আর ওই খবরে দেশের বাজারে পেঁয়াজের দাম এক লাফে বেড়ে যায় ২০ থেকে ২৫ টাকা । তারপর থেকেই ন্যায্য মূল্যের চেয়ে অধিক মুল্যে পেঁয়াজ আমদানি করতে থাকে ভোমরার আমদানিকারা। সাতক্ষীরা শহরের সুলতানপুর বড় বাজারে পেঁয়াজের কাটিয়ার এলাকার দিন মজুর আমিনুর রহমান জানান,গত চার দিনে আগে কেজিপ্রতি পেঁয়াজ ৪০ থেকে ৫০ টাকা দরে। আজ সকালে বাজারে এসে দাম শুনী ১১০ টাকা থেকে ১২০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। সাতক্ষীরার তালা উপজেলার শ্রীমন্তকাটি গ্রামের মো.মতিয়ার মোড়ল জানান,শহরের পেঁয়াজের আগুন গ্রামের হাট-বাজারেও লেগেছে। মাত্র দুইদিনে ব্যবধানে খুচরা বাজারে পেঁয়াজের দাম ডাবল হয়েছে। যা আমাদের ক্রায়ক্ষতার বাইরে চলে গেছে। সাতক্ষীরার ভোমরা সিএন্ডএফ এজেন্ট এসোসিয়েশন সাধারণ সম্পদক , মো: মোস্তাফিজুর রহমান (নাসিম) জানান, ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি পুরোপুরি বন্ধ হওয়ার দিনের ব্যবধানে পেঁয়াজ দাম বেড়ে হয়েছে ডবল বেড়েছে কেজিতে ৪০ থেকে ৫০ টাকায় । তবে পূজার পরে পেঁয়াজ দাম আবার স্বভাবিক হবে বলে আশা করছেন। পেঁয়াজের এই অস্বাভাবিক দাম বৃদ্ধিতে ক্ষুব্ধ খেটে খাওয়া সাধারণ মানুষ। খুব দ্রুত পেঁয়াজের এই অস্বাভিবিক মূল্য সাধরণ খেটে খাওয়া মানুষের ক্রয় ক্ষমার মধ্যে আনতে সকল প্রকার পদক্ষেপ গ্রহন করবে সরকার, এমনটাই প্রত্যাশা তাদের।

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন