গোপালগঞ্জ বশেমুরবিপ্রবি’তে তদন্তে নেমেছে ইউজিসি’র তদন্ত কমিটি

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি

গোপালগঞ্জ বশেমুরবিপ্রবি’তে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের কারণ খতিয়ে দেখতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে তদন্তে নেমেছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের (ইউজিসি’র) ৫-সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটি। ভিসি প্রফেসর ড. খোন্দকার নাসিরউদ্দিনের অপসারণের দাবিতে শিক্ষার্থীদের অনশনসহ লাগাতার আন্দোলনের ৭ম দিনে বুধবার বিকেল সাড়ে ৪ টার দিকে তদন্ত কমিটির প্রধান ইউজিসি’র সদস্য অধ্যাপক আলমগীর হোসেনের নেতৃত্বে অন্য সদস্যগণ গোপালগঞ্জ বশেমুরবিপ্রবি’তে এসে প্রবেশ করেন এবং তাদের তদন্ত কাজ শুরু করেন।
প্রথমেই তারা সেখানে অবস্থানরত স্থানীয় সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন এবং জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ে যা’তে স্বাভাবিক অবস্থা ফিরে আসে সেজন্য তারা সচেষ্ট থাকবেন এবং এজন্য তারা সকলের সহযোগিতাও কামনা করেন। পরে তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবনে যান এবং তদন্ত কাজ শুরু করেন।
তারা আরও জানান, বৃহষ্পতিবার বিকেল পর্যন্ত তারা গোপালগঞ্জে অবস্থান করবেন। এ সময়ের মধ্যে তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলবেন এবং প্রয়োজনীয় তদন্ত শেষ করবেন। তদন্ত কমিটির অন্য সদস্যদের মধ্যে রয়েছেন প্রফেসর ড. দিল আফরোজা বেগম, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচালক মোঃ কামাল হোসেন ও উপ-পরিচালক মৌলি আজাদ। বুধবার রাতে তারা গোপালগঞ্জ সার্কিট হাউজে রাত্রিযাপন করবেন বলে জানা গেছে।
এদিকে শিক্ষার্থী ও সাংবাদিকদের নিয়ে একটি বেসরকারি টেলিভিশনে ভিসি’র দেয়া আপত্তিকর মন্তব্যের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে সংবাদ-সম্মেলন ও ঝাড়– মিছিল করেছে বশেমুরবিপ্রবি’র আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। বুধবার সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে আয়োজিত সংবাদ-সম্মেলনে শিক্ষার্থীদের পক্ষে বক্তব্য পাঠ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত বিভাগের শিক্ষার্থী আব্দুল্লাহ আল গালিব। বক্তব্যে বলা হয়, ভিসি’র ওই বক্তব্য দেশের ৪২ টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ও শিক্ষার্থীদেরকে অপমানিত করেছে।
পরে বেলা ১১ টার দিকে শিক্ষার্থীরা ঝাড়– মিছিল বের করে ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে। সবার মুখে ছিল ওই একই স্লোগান, এক দফা এক দাবি – ভিসি তুই কবে যাবি।
এর আগে মঙ্গলবার বিকেলে একটি বেসরকারি টিভি-চ্যানেলে সাক্ষাৎকার দেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. খোন্দকার নাসিরউদ্দিন। সাক্ষাৎকারে দেয়া তার বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়ে ওইদিন শেষ-বিকেলেই আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসে ঝাড়ু মিছিল বের করে এবং সন্ধ্যায় মশাল মিছিল করে ভিসি-বিরোধী স্লোগান দেয়। এছাড়াও দুপুরে ভিসি’র পদত্যাগ দাবি করে বৃষ্টিতে ভিজে তারা ঘন্টাব্যাপী মানব-বন্ধন কর্মসূচীও পালন করে।

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন