রাম রহিমের ডেরার সম্পত্তির পরিমাণ ১,৬০০ কোটি রুপি!

309
gb

গুরমীত রাম রহিম কয়েক হাজার কোটি রুপির মালিক ছিল। এমনটাই জানিয়েছে হরিয়ানা সরকার।

বুধবার, পঞ্জাব ও হরিয়ানা হাইকোর্টে একটি রিপোর্ট দাখিল করেছে মনোহর লাল খট্টার সরকার। সেখানে রাম রহিম পরিচালিত ডেরা সচ্চা সৌদার মোট মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১,৪৫৩ কোটি রুপি! এবিপি আনন্দ পত্রিকার খবরে বলা হয়েছে, এটা শুধুমাত্র সিরসার হিসেব। হরিয়ানা সরকারের দাবি, গোটা রাজ্যে গুরমীত রাম রহিমের সংস্থার সম্পত্তির মূল্য প্রায় ১৬০০ কোটি রুপি। হরিয়ানার বাইরে ডেরার যে সম্পত্তি রয়েছে, প্রকাশিত হিসেবের মধ্যে সেগুলিকে রাখা হয়নি বলেও জানিয়েছে মনোহর লাল খট্টার প্রশাসন।

হরিয়ানা প্রশাসনের আরও দাবি, তাদের করা মূল্যায়নের তুলনায় ডেরার সম্পত্তির আসল মূল্য অন্তত দেড়গুণ হতে পারে। কারণ, সরকারের মূল্য নির্ধারিত হয়েছে রাজ্যের কালেক্টরের রেটে তৈরি। কিন্তু, আসল বাজারদর অনেকটাই বেশি। ধর্ষেণের মামলায় ডেরা প্রধান গুরমীত রাম রহিমের দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পর সিরসা ও পাঁচকুলার হিংসায় প্রচুর সরকারি সম্পত্তি নষ্ট হয়। এই মর্মে সম্প্রতি, পঞ্জাব ও হরিয়ানা হাইকোর্ট নির্দেশ দেয়, ওই ক্ষতিপূরণের অর্থ আদায় করতে হবে ডেরা সচ্চা সৌদার থেকে।

এরপরই, ডেরার সম্পত্তি সংক্রান্ত একটি রিপোর্ট এদিন উচ্চ আদালতে পেশ করে হরিয়ানা সরকার। এক নজরে হরিয়ানার বিভিন্ন জেলায় ছড়িয়ে থাকা ডেরার সম্পত্তির পরিমাণ, সিরসা- ১,৪৫৩ কোটি রুপি, অম্বালা- ৩২.২ কোটি রুপি, ফতেবাদ- ২০.৭ কোটি রুপি, জিন্দ- ১৯.৩৩ কোটি রুপি, সোনেপত- ১৭.৬৫ কোটি রুপি, কৈথাল- ১১.১৬ কোটি রুপি, কুরুক্ষত্র- ৭.৪২ কোটি রুপি, হিসার- ৭ কোটি রুপি, করনাল- ৬ কোটি রুপি, ভিওয়ানি- ৩.৮৭ কোটি রুপি, যমূনা নগর- ৩.১৪ কোটি রুপি, পানিপথ- ২.৮২ কোটি রুপি ও ফরিদাবাদ-১.৫৬ কোটি রুপি।