গাইবান্ধায় অবৈধভাবে জমি দখল নিতে একজনকে পিটিয়ে জখম

238
gb

বিশেষ প্রতিনিধি  ||

গাইবান্ধা সদরের পুরাতন জেলখানা সংলগ্ন সান্ত কনফেকশনারি দোকানের পেছনের জায়গা দখল নিতে হামলা ও ভাঙচুর করেছে দুর্বৃত্তরা। এ হামলায় দোকান মালিক জিহাদ হোসেন গুরুত্বর আহত হন। আহত জিহাদকে পুলিশ ও স্থানীয়রা প্রথমে সদর হাসপাতালে এবং পরে তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। পুরাতন জেলখানা সংলগ্ন (বর্তমানে বিয়াম ল্যাবরেটরি স্কুল) এলাকায় সোমবার বিকালে এ ঘটনা ঘটে। জিহাদের বড় ভাই জাভেদ হোসেন জানান, ১৯৮১ সালে আমার বাবা মৃত নিজাম উদ্দিন তৎকালীন (বিল্ডিং ডিভিশন রংপুর) বর্তমানে গণপূর্ত বিভাগ থেকে ৬ ফিট বাই ১০ ফিট জায়গা দোকানের জন্য লিজ নেন- যা পুরাতন জেল বিল্ডিং ও মুনসেফ কোর্টের মাঝে পানি নিস্কাশন ড্রেনের উপর অবস্থিত। মুনসেফ কোর্ট (বর্তমানে পুরাতন জজ কোট) এলাকায় অবস্থিত সান্ত কনফেকশনারির পাশে মাহাবুবার রহমানের মারিয়া বেকারি একটি নামে কনফেকশনারি আছে- যা জজ কোর্ট থেকে লিজ নেয়া আছে বলে তিনি দাবি করেন। দীর্ঘদিন থেকেই মাহাবুবার রহমান আমাদের লিজ নেয়া দোকানের জায়গাটির পেছনের অংশ দখলের পাঁয়তারা করে আসছিলেন। তিনি আরো জানান, গাইবান্ধা শহরের প্রধান সড়কটি ফোর লেন করার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হলে আমার দোকানের পেছনের ফাঁকা জায়গাটি মাহাবুবার রহমান দখলে নিতে মরিয়া হয়ে ওঠেন। এসব প্রেক্ষিতে সোমবার বিকালে তিনি দখল নিতে চাইলে আমার ছোট ভাই জিহাদ হোসেন সেখানে যায়। এসময় মাহাবুবার রহমানের বাহিনী হামলা করে জিহাদকে গুরুতর জখম করে। এ ব্যাপারে সদর থানায় জিহাদ হোসেনের স্ত্রী বাদী ঘটনারদিনই একটি অভিযোগ করেন।কিন্তু থানার ওসি বিভিন্ন অজুহাতে মামলা নেননি ।এমন কি ওসি বলেন মাহাবুবার রহমান জেলা জজের কাছের লোক তার বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ নেয়া যাবেনা।এমনই অভিযোগ করেন আহত জিহাদ হোসেনের ভাই জাভেদ হোসেন । গাইবান্ধা সদর থানার ওসি খান মোঃ শাহরিয়ারকে ফোন করলে তিনি এ ব্যাপারে কথা বলতে অপারগতা স্বীকার করেন।