‘ইসলাম ধর্মে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের কোন স্থান নেই’

339
gb

জিবিনিউজ24 ||

নিষ্ঠুর আচরণ ইসলামের দৃষ্টিতে সম্পূর্ণ অগ্রহণযোগ্য। শান্তি কেবল তখনই প্রতিষ্ঠিত হতে পারে যখন শত্রু-মিত্র নির্বিশেষে সবার ক্ষেত্রে নিরঙ্কুশ ন্যায় বিচারের আদর্শ পালন করা হয়।’- বিশ্ব আহমদীয়া মুসলিম জামাতের যুগ খলীফা হযরত মির্যা মাসরূর আহমদ (আই.)-এর এই উদ্ধৃতি প্রদান করা হয় আহমদীয়া মুসলিম জামাত বাংলাদেশের ৯৪তম বার্ষিক ধর্মীও সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশনে।

শনিবারের জলসার আয়োজনে শুভেচ্ছা বক্তব্য প্রদান করেন প্রফেসর সৈয়দ আনোয়ার হোসেন, প্রফেসর মেসবাউল ইসলাম, সভাপতি হাক্কানী মিশন, বাংলাদেশ, প্রবীণ সাংবাদিক ও কলামিস্ট শাহরিয়ার কবির, সাংবাদিক জুলফিকার আলী মানিক, হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য কাজল দেবনাথ এবং বাংলাদেশ বৌদ্ধ কৃষ্টি প্রচার সংঘের সহ-সভাপতি ভেন করুনানান্দ থেরো। তারা বলেন, এদেশে সকলের স্বাধীন ভাবে মতামত প্রকাশ করার অধিকার রয়েছে। এদেশে জঙ্গিবাদের কোন স্থান নেই। বাংলাদেশ আর পেছনে থাকবে না, সামনে এগিয়ে যাবে।

বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠায় যুগ-খলিফার ভূমিকা বিষয়ে বক্তৃতা করতে গিয়ে আহমদীয়া মুসলিম জামাতের বত্তাগণ মুসলিম উগ্রবাদের উত্থান প্রসঙ্গে আহমদীয়া মুসলিম জামাতের বর্তমান খলিফার উদ্ধৃতি তুলে ধরে বলেন, মুসলমানদের কতিপয় গোষ্ঠী অবৈধ উপায় ও আত্মঘাতী বোমা ব্যবহার করে, ধর্মের নামে সামরিক ও বেসামরিক অমুসলিমদের হত্যা ও ক্ষয়-ক্ষতি সাধনের পাশাপাশি নিরীহ মুসলমান ও শিশুদের পর্যন্ত নৃশংসভাবে হত্যা করছে। এ ধরনের নিষ্ঠুর আচরণ ইসলামের দৃষ্টিতে সম্পূর্ণ অগ্রহণযোগ্য। শান্তি কেবল তখনই প্রতিষ্ঠিত হতে পারে যখন শত্রু-মিত্র নির্বিশেষে সবার ক্ষেত্রে নিরঙ্কুশ ন্যায় বিচারের আদর্শ পালন করা হয়। আল্লাহ যেন বিশ্ব নেতৃবৃন্দ এবং নীতিনির্ধারকদের সুমতি প্রদান করেন, যাতে করে আমরা আমাদের শিশু ও ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য একটা শান্তি ও সমৃদ্ধশালী বিশ্ব রেখে যেতে পারি।

ঢাকার বকশীবাজারে আহমদীয়া মুসলিম জামাত বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় মসজিদে তিনদিন ব্যাপী ধর্মীও সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এবারের আয়োজনে সারা দেশ থেকে অংশগ্রহণ করেন ৬ হাজারের বেশি সদস্য। এ ছাড়াও নরওয়ে, ইংল্যান্ড, কানাডা, আমেরিকা,বাহরাইন, ভারত ও পাকিস্তানসহ আরো কয়েকটি দেশের প্রতিনিধিও উপস্থিত ছিলেন বার্ষিক সালানা জলসায়।