সড়ক পরিবহন আইন বাস্তবায়ন শিথিল করা হচ্ছে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

জিবি নিউজ ২৪ ডেস্ক//

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল জানিয়েছেন, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ’র (বিআরটিএ) দুর্বলতার কারণে সড়ক পরিবহন আইন বাস্তবায়ন কিছু কিছু ক্ষেত্রে শিথিল করা হচ্ছে।

রোববার (২৪ নভেম্বর) স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে টাস্কফোর্স কমিটির প্রথম সভা শেষে সাংবাদিকদের তিনি একথা বলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এই আইন বাস্তবায়নে নতুন করে চার সচিবের নেতৃত্বে চারটি উপ-কমিটি করা হয়েছে। তারা আগামী দুই মাসের মধ্যে সুপারিশ ও অ্যাকশন প্লানসহ প্রতিবেদন জমা দেবে। পরে টাস্কফোর্স কমিটির সভায় তা উপস্থাপন করা হবে। সেখানে আলোচনা করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সড়কের নিরাপত্তা আনতে ১১১ সুপারিশ বাস্তবায়নে এই কমিটি করা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, বিশেষ করে বিআরটিএ-কে আরো শক্তিশালী করতে হবে। এখাতে বিশেষ নজর দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, ১১১ দফা বাস্তবায়নে টাস্কফোর্স গঠন হয়েছে, সেই ফোর্সের কাজ ছিল পরিবহন সেক্টরের শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা এবং বাস্তবমুখী পরিকল্পনা করা। আজ সেই কমিটির প্রথম সভা হলো। সভায় ১১১ সুপারিশ বাস্তবায়ন ও পরিকল্পনার জন্য চার সচিবের নেতৃত্বে চারটি সাব কমিটি করেছি। তারা নির্ধারণ করবে, কোথায় কী কাজ করতে হবে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, যোগাগাযোগ সচিব, জননিরাপত্তা সচিব, তথ্য সচিব ও স্থানীয় সরকারের মন্ত্রণালয়ের সচিবের নেতৃত্বে চারটি কমিটি হয়েছে। দুই মাসের মধ্যে তাদের সুপারিশ ও পরিকল্পনা তারা দেবেন। দুই মাস পর আবার টাস্কফোর্সের বৈঠক হবে। তাদের সুপারিশের সঙ্গে অ্যাকশন প্ল্যান করে দেবে।

নতুন সড়ক আইনে মৃত্যুদণ্ডের কথা লেখা নেই জানিয়ে তিনি বলেন, নতুন সড়ক আইনে ফাঁসির কোনো কথা লেখা নেই। মিথ্যা প্রচারের জন্য চালকদের মধ্যে ভয়ভীতি সৃষ্টি করছে। সেজন্য তথ্য সচিব কাজ করবেন। আইনে কত বছর সাজা হবে এবং সর্বোচ্চ কত টাকা জরিমানা হবে সেটি লেখা হয়েছে, সেটা কমানোর সিদ্ধান্ত নেই। তবে আইন অনুযায়ী কি শাস্তি হবে বা অর্থদণ্ড হবে সেটা বিচারক সিদ্ধান্ত নেবেন।

উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত নতুন সড়ক পরিবহন আইনের ড্রাইভিং লাইসেন্স, গাড়ির ফিটনেসসহ কয়েকটি বিষয়ে শিথিলতা প্রদর্শন করবে পুলিশ। সেসময় পর্যন্ত আন্দোলনে না যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি ও সংসদ সদস্য শাজাহান খান। শনিবার রাতে রাজধানীর ধানমণ্ডির নিজ বাসভবনে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল ও শাহজাহান খান পরিবহন নেতাদের সঙ্গে বৈঠক শেষে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।