নতুন সুপার পানীয় হতে পারে ‘ব্ল্যাক টি’

8,288
gb

চা এমনিতেই শরীরের জন্য ভালো। তার চেয়েও ভালো গ্রিন টি।

এটা তো রীতিমতো পথ্য হিসেবে ব্যবহৃত হয়। সাম্প্রতিক এক গবেষণায় বেরিয়ে এসেছে আরো এক দারুণ উপকারী চায়ের কথা। এবার বিজ্ঞানীরা বলছেন ব্ল্যাক টিয়ের কথা। গবেষণায় বলা হয়, ওজন নিয়ন্ত্রণ থেকে শুরু করে অন্ত্রে উপকারী ব্যাকটেরিয়ার ভারসাম্য বজায় রাখে এই চা্

ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়ার একদল গবেষক ইঁদুরের ওপর গবেষণা চালিয়েছেন। ওগুলোকে ব্ল্যাক টি খাইয়ে তাদের অন্ত্রের বিপাকক্রিয়া বদলে দেওয়া যায় কিনা তাই দেখা হয়েছে।

পরীক্ষায় দেখা গেছে, ব্ল্যাক বা গ্রিন টি দুটোই অন্ত্রের স্বাস্থ্যকর ব্যাকটেরিয়ার আণুপাতিক হার বদলে দেয়। যে পরিমাণ ব্যাকটেরিয়া থাকলে স্থূলতা হ্রাস পায়, সে ভারসাম্যপূর্ণ অবস্থা এনে দেয় ব্ল্যাক টি।

নতুন এ গবেষণায় দেখা গেছে, ব্ল্যাক টি-তে আছে পলিফেনোল। ক্ষুদ্রান্তে শুষে নেওয়ার জন্য এগুলো বেশ বড় উপাদান।

এটি ফ্যাটি এসিডের গঠন এবং অন্ত্রের ব্যাকটেরিয়ার বৃদ্ধিতে ত্বরান্বিত করে।

প্রধান গবেষক সুজানে হেনিং বলেন, এটা সবার জানা যে ব্ল্যাক টিয়ের পরিফেনোলের চেয়ে গ্রিন টি এর পলিফেনল অনেক বেশি কার্যকরী এবং স্বাস্থ্যগুণসম্পন্ন। কারণ গ্রিন টি এর উপাদানগুলো সহজে রক্ত ও টিস্যুর মাধ্যমে শোষিত হয়। তবে ব্ল্যাক টি অন্ত্রের ব্যাকটেরিয়ার সঙ্গে বিশেষ উপায়ে কার্যকর হয়। ফলে সুস্বাস্থ্য এবং ওজন হ্রাসের ক্ষেত্রে তা বেশ কাজের হয়ে থাকে। ব্ল্যাক টি আসলে প্রিবায়োটিক। এটা এমন উপাদান যা মানুষের ভালো থাকার জন্য যেসব মাইক্রো-অর্গানিজম দরকার হয় তার ভারসাম্য রক্ষা করে।

ইউরোপিয়ান জার্নাল অব নিউট্রিশন- এ প্রকাশিত হয়েছে এই গবেষণাপত্র।