Bangla Newspaper

২৯ সেপ্টেম্বর শনিবার ওয়াশিংটনে গীতিআলেখ্য চন্দ্রাবতী

45

শিব্বীর আহমেদ, ওয়াশিংটন: মৈমনসিংহ গীতিকা মহুয়ার সফল পরিবেশনার পর এবার আবারো মৈমনসিংহ গীতিকা ”চন্দ্রাবতী” নিয়ে হাজির হচ্ছে বৃহত্তর ওয়াশিংটনের সাংস্কৃতিক সংগঠন একতারা। আগামী ২৯ সেপ্টেম্বর শনিবার বিকাল সাড়ে ৪ ঘটিকার সময় থমাস এডিসন হাইস্কুল, ৫৮০১ ফ্রানকোনিয়া রোড, আলেকজান্দ্রীয়া, ভার্জিনিয়া ২২৩১০ এ অনুষ্ঠিত হবে চন্দ্রবতীর পরিবেশনা। ২০১৫ সালে গীতিআলেখ্য মহুয়ার পরিবেশনার পর চন্দ্রাবতী একতারার দ্বিতীয় মৈমনসিংহ গীতিআলেখ্য পরিবেশনা।

চন্দ্রাবতী প্রখ্যাত দ্বিজবংশী দাসের কন্যা। চন্দ্রাবতীর মায়ের নাম সুলোচনা। তাঁর নিবাস ‘চাইর কোনা পুস্কুনির পারে’ ‘চম্পানাগেশ্বর’ শোভিত অঞ্চলে অর্থাত্ কিশোরগঞ্জ জেলার পাতুয়ারী গ্রামে। চন্দ্রাবতীর বাল্যজীবনে প্রেম আসে। বংশীদাসের কন্যা চন্দ্রাবতী একদিন পূজার জন্য ফুল তুলতে গেলে সুন্ধ্যা গ্রামের জয়ানন্দের সাথে দেখা হয়। প্রথমদর্শনেই জয়ানন্দ চন্দ্রাবতীর প্রেমে পড়ে যান এবং প্রেম নিবেদন করেন। ধীরে ধীরে চন্দ্রাবতীর সঙ্গে জয়ানন্দের প্রণয়ের সম্পর্ক তৈরি হয়। জয়ানন্দ ছিলেন ব্রাহ্মণসন্তান। দুজনের মধ্যকার সম্পর্ক সফল পরিণতির দিকেই এগোয়। পিতা দ্বিজবংশীর সম্মতিতেই দুজনের বিয়ে স্থির হয়।

কিন্তু বিয়ের ঠিক আগেই জয়ানন্দের জীবনে আসে এক মুসলমান তরুণী। এতে চ্রন্দ্রাবতীর আসন্ন প্রণয়কাব্য করুণ উপাখ্যানে পরিণত হয়। গীতিকাব্যটি রচনা করেছেন নয়ানচাঁদ ঘোষ, আনুমানিক ২৫০ বছর আগে। নেয়া হয়েছে দীনেশচন্দ্র সেন সংকলিত মৈমনসিংহ গীতিকা থেকে।

মৈমনসিংহ গীতিকা গুলিতে হিন্দু ও মুসলমান দুটি সংস্কৃতিই দেখতে পাওয়া যায়। এদের বৈশিষ্ট হল এই যে প্রাচীন বাংলা সাহিত্যে প্রধানত ধর্মাশ্রিত হলেও এদের উপর ধর্মের প্রভাব খুবই অল্প। এগুলি অধিকাংশই প্রণয়মূলক । এদের মধ্যে ফুটে উঠেছে পূর্ববঙ্গের পল্লী-জীবনের অপূর্ব আলেখ্য। এই পল্লী-জীবনের পটভূমিকায় বর্ণিত হয়েছে নায়ক নায়ীকাদের প্রেম ভালবাসা। ষোড়শ শতকের প্রথম বাঙালী মহিলা কবি চন্দ্রাবতীকে যাঁর নিজের জীবনই কিংবদন্তী হয়ে “চন্দ্রাবতী” পালায় পর্যবসিত হয়েছে। তাঁর লেখা রামায়ণ কথা একটি এমন রচনা যেখানে রামের গুণগানের বদলে সীতাদেবীর দুঃখ দুর্দশাই তিনি বর্ণনা করেছেন। একজন নারীর দৃষ্টিতে এই মহাকাব্য রচণা স্বাভাবিকভাবেই পন্ডিত সমাজে অবাঞ্ছিত বলেই তাকে দুর্ব্বল ও অসমাপ্ত সাহিত্য আখ্যা দিয়ে সরিয়ে রাখা হয়েছিল।

বৃহত্তর ওয়াশিংটন প্রবাসের নুতন প্রজন্মের অভিনয় শিল্পীদের সমন্বয়ে অভিনয়ে এবং একতারার আয়োজনে আগামী ২৯ সেপ্টেম্বর শনিবার অনুষ্ঠিত হবে চন্দ্রাবতী গীতিআলেখ্য। বৃহত্তর ওয়াশিংটনে অনুষ্ঠিতব্য চন্দ্রাবতী গীতিআলেখ্য সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্যের জন্য শেখ মাওলা মিলন ৭০৩-৬২৫-৭৫৬১ এর সাথে যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে।

Comments
Loading...