মুক্তিযোদ্ধার প্রজন্ম’র দেড়যুগপূর্তি অনুষ্ঠানে এম.পি ইয়াহইয়া চৌধুরী

497
gb

যাদের কারিগরি জ্ঞান আছে জীবনযুদ্ধে তারা কখনও পরাজিত হয়না

 

৭১ এর বীর মুক্তিযোদ্ধার গর্বিত সন্তানদের সংগঠন মুক্তিযোদ্ধার প্রজন্ম’র দেড়যুগ (১৮ বছর) পূর্তি উপলক্ষে ১৮ দিনের অনুষ্ঠানমালার উদ্বোধন সেবামুলক কার্যক্রম অসচ্ছলদের সেলাই প্রশিক্ষণ কেন্দ্র প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে শুরু হয়েছে। সংগঠনের সভাপতি সাংবাদিক কবি নাজমুল ইসলাম মকবুল’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ও অনুষ্ঠানের শুভ সুচনা করেন সিলেট-২ বিশ্বনাথ বালাগঞ্জ ওসমানী নগর আসনের এম.পি এবং বন ও পরিবেশ সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ইয়াহইয়া চৌধুরী এহিয়া।

বক্তব্যে তিনি বলেন, আর্তমানবতার সেবা করা উত্তম ইবাদাত। সেবামুলক কাজের মাধ্যমে যুগ যুগ ধরে মানুষের হৃদয়ে স্থায়ী আসন অর্জন সম্ভব। শুধু শিক্ষিত হলেই চলবেনা, আমাদের সু-শিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে। কারিগরি শিক্ষার প্রতি সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিতে হবে। যাদের কারিগরি জ্ঞান আছে জীবনযুদ্ধে তারা কখনও পরাজিত হয়না। জীবন জীবিকার জন্য কষ্ট করতে হয়না বা অন্যের মুখাপেক্ষী হতে হয়না।

তিনি আরও বলেন, মুক্তিযোদ্ধার প্রজন্ম’র দেড়যুগপূর্তি অনুষ্ঠান সেবামুলক কার্যক্রমের মাধ্যমে শুরু হওয়া সত্যিই ব্যতিক্রম। বিগত ১৮ বছরে সেবামুলক কাজ করে তারা যে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন তা অন্যান্য সংগঠনের দায়িত্বশীলরা অনুসরন করা দরকার।

মাদরাসার সুপার মাওলানা মোঃ আজিজুর রহমান ও মুক্তিযোদ্ধার প্রজন্ম’র সাংগঠনিক সম্পাদক নাজমুল হোসেনের পরিচালনায় ২১ জুলাই শনিবার বিশ্বনাথের অলংকারী পৌদনাপুর হাফিজিয়া দাখিল মাদরাসা অডিটরিয়ামে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, কামাল বাজার ফাযিল মাদরাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা মুফতি এ কে এম মনোওর আলী, ৩নং অলংকারী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নাজমুল ইসলাম রুহেল, ইসহাক একাডেমীর প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালনা কমিটির সভাপতি মিজানুর রহমান মোজাহিদ, রামধানা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি সালেহ আহমদ তোতা, যুক্তরাজ্য প্রবাসী সমাজসেবী ও শিক্ষানুরাগী আমিনুর মিয়া।

মাওলানা মুফতি এ কে এম মনোওর আলী বলেন, মুক্তিযোদ্ধার প্রজন্ম’র বহুবিধ এবং ব্যতিক্রম কর্মসূচী সিলেট তথা বাংলাদেশের সর্বত্রই প্রশংসিত হয়েছে। আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলের বিজ্ঞজনরাও এর প্রশংসা করছেন।

চেয়ারম্যান নাজমুল ইসলাম রুহেল বলেন, মুক্তিযোদ্ধার প্রজন্ম’র সকল কার্যক্রমে আমাদের সর্বাত্ত্বক সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে।

মাদরাসার ও এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন পশ্চিম অলংকারী জামে মসজিদের মুতাওয়াল্লী মোঃ লিয়াকত আলী, মাওলানা মোঃ আজিজুর রহমান, মাওলানা দিলওয়ার হোসেন, মাওলানা আমিনুল ইসলাম, ফজলুর রহমান।

শুরুতে পবিত্র কোরআন তিলাওয়াত করেন সুমন আহমদ এবং সঙ্গীত পরিবেশন করেন জাকির হোসেন, আজিজুল ইসলাম। ছাত্র ছাত্রীদের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন এনাম আহমদ।

অনুষ্ঠানে যুক্তরাজ্য প্রবাসী এবং সমাজসেবী ও দানশীলদের অর্থায়নে প্রতিষ্ঠিত বিশ্বনাথের অলংকারী পৌদনাপুর হাফিজিয়া দাখিল মাদরাসায় সেলাই প্রশিক্ষণ কেন্দ্র উদ্বোধন করা হয় এবং চারটি অত্যাধুনিক সেলাই মেশিন প্রদান করা হয়।