কত্তোবড় মিথ্যাবাদিতা চলছে দেশে!

570
gb

সোনিয়া জামান:: হুজুগে বাঙালি ব্লু-হোয়েল ব্লু-হোয়েল করে জ্ঞান দিতে দিতে তারা মানবতার পিন্ডি উদ্ধার করে ষষ্ঠী পূজা করে ছেড়ে দিয়েছিলো। হুজুগে লাফাইন্যা পাবলিক যে আরও কত লাফাইতে পারে তার প্রমাণ তারা আবারও দিলো। কদিন ধরে দেখছি বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে ফলাও করে প্রচার করছে একটা নিউজ- বৃদ্ধ মাকে রেলস্টেশনে ফেলে গেলেন বিসিএস ক্যাডার ছেলে! এই নিউজ দেখে কোনওকিছু না ভেবেই পাবলিক জোরকদমে গিলছে, গিলেই তারা ক্ষ্যান্ত হচ্ছেনা। হাজারো জ্ঞান বিতরন করাটাও তাদের ফরজ কর্ম বইলা মনে হইতেছে। বিসিএস ক্যাডারের পিন্ডি চটকাইয়া তাহার চৌদ্দ গোষ্ঠী উদ্ধার কইরা নিজেদের মানবতার জোয়ার দেখাইতাছে। অথচ এরা জানেই না যে আসলে এটা একটা সাধারণ জরিপ ছিলো মাত্র। ২০১৫ সালের ইন্ডিয়ান একটা পত্রিকার জরিপের ছবি তুলে তা দিয়ে বাংলাদেশের ঘটনা বলে দিব্যি চালিয়ে দিয়েছে সংবাদ মাধ্যম গুলো। কত্তোবড় মিথ্যাবাদিতা চলছে দেশে! জনগণও এগুলো হরদমে গপাগপ গিলছে।
বুঝলাম না হয় সংবাদমাধ্যমের উপর নির্ভর করে পাবলিক এই অখাদ্য কুখাদ্য গুলা গিলছে, কিন্তু আমার প্রশ্ন হলো সাংবাদিক গুলা ইচ্ছে করেই এগুলো ছড়াচ্ছে নাকি নিজেদের অজ্ঞতা-অসচেতনার কারনে ছড়াচ্ছে? আমার তো মনে হয় শাক দিয়ে মাছ ঢাকবার প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে। স্বার্থান্বেষী দের পরিকল্পিত এবং এর ভিতরে কোনও ষড়যন্ত্র আছে বলে যদি আমি সন্দেহ করে থাকি তবে সেটা কি একেবারে অমূলক হবে?

(লেখকের ফেইসবুক থেকে নেয়া)