বিমান দূর্ঘটনায় নিহত মুক্তিযোদ্ধার জানাজা অনুষ্ঠিত

426
gb

জাকির হোসেন পিংকু, চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি: নেপালে বিমান দূর্ঘটনায় নিহত মুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলামের (৬৫) জানাজা রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় শুক্রবার সকাল ১০টায় তাঁর গ্রামের বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলার বাঙ্গাবাড়ী ইউনিয়নের বেগুনবাড়ি গ্রামে অনুষ্ঠিত হয়েছে। জানাজা নামাজের পূর্বে বক্তব্য দেন,স্থানীয় সাংসদ গোলাম মোস্তফা বিশ্বাস,সাবেক সাংসদ জিয়াউর রহমান,উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সিহাব রায়হান,উপজেলা চেয়ারম্যান বাইরুল ইসলাম,নাচোল উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের,নিহতের ভাই মনিরুল ইসলাম, মুক্তিযোদ্ধা আশরাফুল হক প্রমূখ। জানাজা শেষে তাঁকে রাজশাহী মগানগরীর উপশহরের বাসায় নিয়ে যাওয়া হয়। বর্তমানে তিনি সপরিবারে এখানেই বসবাস করতেন। জুম্মা নামাজের পর আরেক দফা জানাজা নামাজ শেষে রাজশাহীর গোরহাঙ্গা গোরস্থানে স্ত্রীর কবরের পাশে তাঁকে দাফন করা হয়। নজরুল ইসলাম বেগুনবাড়ী গ্রামের স্কুল শিক্ষক মৃত.আব্দুর রহিমের ছেলে। তিনি রাজশাহীতে বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকের (প্রাক্তন শিল্প ব্যাংক) অব.কর্মকর্তা ছিলেন। তাঁর স্ত্রী আক্তারা বেগম (৬০) চাঁপাইনবাবগঞ্জ শিবগঞ্জ উপজেলার সত্রাজিতপুর ইউনিয়নের মন্ডলপাড়ার আব্দুর রহিমের মেয়ে। তিনি রাজশাহী সরকারী মহিলা কলেজের ক্রীড়া শিক্ষক হিসেবে অবসর নেন। মৃত্যুকালে এ দম্পতি দুই কন্যা রেখে যান। নিহতের বড় মেয়ে নাজনিন আক্তার কাকন বলেন, যেহেতু একই দূর্ঘটনায় একই সাথে নিহত আম্মা আক্তারা বেগমকে রাজশাহীতে কবর দেওয়া হয়েছে, তাই আব্বাকেও আম্মার কবরের পাশেই দাফন করা হলো। এর আগে গত মঙ্গলবার আক্তারা বেগমের মরদেহ বেগুনবাড়ী গ্রামে তাঁর স্মশুরবাড়ীতে নিয়ে আসা হয়। সেখানে জানাজার পর তাঁকে রাজশাহীতে সমাহিত করা হয়। এছাড়া একই দূর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরের নামোশংকরবাটীর মৃত.আব্দুর রকিবের মেয়ে ও নাটোর লালপুরের সাবেক কলেজ শিক্ষক বিলকিস বেগম (৬২) ও তাঁর স্বামী অব. যুগ্ম সচিব পঞ্চগড় জেলার মির্জাপুর গ্রামের হাসান ইমাম (৬৫)। তাঁরা রাজশাহী মহানগলীর শিরোইলে বসবাস করতেন। তাঁদের ঢাকায় সমাহিত করা হয়েছে। মৃত্যুবরণকারী চাঁপাইনবাবগঞ্জের এই দুই দম্পতির চারজন পরস্পর বন্ধু ছিলেন। তাঁরা বেড়াতে নেপাল যাচ্ছিলেন। তিনজনকে গত সোমবার প্রথম দফায় দেশে আনা হলেও নজরুলকে সনাক্তের পর গত বৃহস্পতিবার দেশে আনা হয়।