হুয়ায়ূন কবীর জাহানুর স্মৃতি স্কাউটস পদক পেলেন ধূর্জটি কুমার বসু

1,222
gb

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:
স্কাউটসের প্রতিষ্ঠাতা লর্ড ব্যাডেন পাওয়েলের ১৬১তম জন্মদিন উপলক্ষেবৃহস্পতিবার সুনামগঞ্জ শহরের শোভাযাত্রা ও আলোচনা সভা করেছেন কর্ণিকার মুক্তস্কাউটস গ্রæপ।জেলা স্কাউটস ভবন থেকে সকার ১০টায় পৌর শহরে শোভাযাত্রা বের করে কর্ণিকার
মুক্ত স্কাউটস গ্রæপ। শোভাযাত্রা শেষে স্কাউট ভবনে জেলার প্রবীণ স্কাউটসব্যক্তিত্ব ধূর্জটি কুমার বসুর সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন আয়োজক সংগঠনেরসভাপতি ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক দেওয়ান ইমদাদ রেজা চৌধুরী,যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী লেখক ও গীতিকার ইশতিয়াক রুপ,যুক্তরাজ্যপ্রবাসী কমিউনিটনেতা ইমানুজ্জামান চৌধুরী মহী,আব্দুস শহিদ, জেলা স্কাউটসের সাধারণসম্পাদক তাহির আলী তালুকদার, সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান নিগারসুলতানা কেয়া,বদরুল কাদির শিহাব,জেলা রোভার স্কাউটস সম্পাদক শাহ আবু
নাসের, দৈনিক প্রথম আলোর জেলা প্রতিনিধি অ্যাডভোকেট খলিল রহমান,জেলাশ্রমিকলীগের আহবায়ক সেলিম আহমদ,জেলা স্কাউটসের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদককানন বন্ধু রায়, সদর উপজেলা স্কাউটসের কমিশনার মো. গিয়াস উদ্দিন, কর্নিকার
মুক্ত স্কাউটস গ্রæপের সাধারণ সম্পাদক মো.বুরহান উদ্দিন,তাহিরপুর উপজেলাস্কাউটস কমিশনার নারায়ণ চক্রবর্তী, ইউনিট লিডার ফেরদৌস আরা ইয়াসমিন,শিখা দাস গুপ্ত, তামান্না আক্তার, হাসমত আরা বেগম, রাছমিন আরা বেগম, মো.
হাবিবুর রহমান,জেলা রোভার স্কাউটস লিডার মো.রায়হান উদ্দিন,কর্নিকার মুক্তস্কাউটস গ্রæপের যুগ্ম-সম্পাদক আব্দুস সালাম মাহবুব, সহ-সম্পাদক দুর্জয়দত্ত পুরকায়স্থ প্রমূখ।অনুষ্ঠানে সুনামগঞ্জ জেলা স্কাউটসের সাবেক সাধারণ সম্পাদক প্রয়াত হুমায়ূনকবির জাহানুরের নামে চালু হওয়া হুমায়ূন কবির স্মতিস্কাউটস পদক দেওয়া হয়।এবারের পদ পেয়েছেন বাংলাদেশ স্কাউটসের দ্বিতীয় সবোঁচ্চ সম্মাননা রৌপ্যইলিশ পদকপ্রাপ্ত সুনামগঞ্জের প্রবীণ স্কাউটস ব্যক্তিত্ব জেলা স্কাউটসেরসহসভাপতি শিক্ষাবিদ ধূর্জটি কুমার বসু। গত বছর থেকে যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসীলেখক ও গীতিকার ইশতিয়াক রুপুর সহায়তায় এই পদক প্রদান করছে কর্ণিকার
মুক্ত স্কাউটস গ্রæপ।সভায় পদকপ্রাপ্ত প্রবীণ স্কাউটস ব্যক্তিত্ব ধূর্জটি কুমার বসু বলেন, আমি১৯৬৪সাল থেকে স্কাউটস আন্দোলনের সঙ্গে যুক্ত। সততা ও নিষ্টার সঙ্গে দায়িত্বপালন করছি। স্কাউটস আন্দোলন একজন মানুষকে আলোকিত করে, দায়িত্বশীল হতে
শেখায়। সমাজ ও দেশকে ভালোবাসা চর্চা হয় এখানে। নতুন প্রজন্ম যত বেশি এরসঙ্গে যুক্ত হবে ততই দেশের কল্যাণ হবে।
পরে ১০০ জন দুঃস্থ্ধসঢ়; ও হত দরিদ্র মানুষের মাঝে ছাতা বিতরন করা হয়।