করোনা চিকিৎসায় নতুন ওষুধের ট্রায়াল শুরু করলো জাপান

58
gb
5

সাধারণত ঠান্ডা, সর্দি সারাতে ওষুধ হিসেবে ব্যবহার করা হয় ‘অ্যাভিগান’। কিন্তু এবার সেই ওষুধ করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ের অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে জাপান।

চীনে করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের চিকিৎসায় অ্যাভিগান ব্যবহার করে সাফল্য পেয়েছিলেন চিকিৎসকরা। যে সব আক্রান্তদের অ্যাভিগান দেওয়া হয়েছিল তারা অন্যদের থেকে দ্রুত সেরে উঠেছিলেন। করোনার বিরুদ্ধে অ্যাভিগান যার জেনেরিক নাম ফ্যাভিপিরাভির ব্যবহারের ট্রায়াল শুরু করলো এবার জাপানের সংস্থা ফুজি ফিল্ম।

জুন মাসের শেষের দিকে ১০০ জন আক্রান্তের উপর পরীক্ষামূলকভাবে অ্যাভিগান প্রয়োগ করা হবে বলে জানিয়েছেন সংস্থার কর্ণধার। ইতোমধ্যে এই ওষুধ প্রাণীদের উপর পরীক্ষামূলক প্রয়োগ করা হয়েছে। প্রাণীদের শরীরে পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছিল। ফলে অন্তঃসত্ত্বা নারীদের উপর এই ওষুধ ব্যবহার করা হবে না বলে জানিয়েছে সংস্থাটি।

নিউমোনিয়ায় আক্রান্তদের সারিয়ে তুলতে অ্যাভিগান ম্যাজিকের মতো কাজ করেছে বলে জানিয়েছে সংস্থাটি।

গত সপ্তাহে জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে জানিয়েছিলেন, তার দেশ ভাইরাসের মোকাবেলায় অ্যাভিগানের অনুমোদন প্রক্রিয়া শুরু করবে। এরপরই এই ওষুধের ট্রায়াল শুরু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সংস্থাটি।

একদল চিকিৎসক জানিয়েছেন, অ্যাভিগান প্রয়োগে অসুস্থ ব্যক্তিকে দ্রুত সারিয়ে তোলা যায়। জাপানের কাছে এই ওষুধ নিয়ে আগ্রহ প্রকাশ করেছে বেশ কিছু দেশ। করোনার টিকা আবিষ্কারে এখনও এক থেকে দেড় বছর সময় লাগতে পারে বলে জানিয়েছেন বহু দেশের গবেষকরা। ফলে এই সময়টাতে প্রচুর মানুষ মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ছেন। করোনার প্রকোপ থেকে কীভাবে বাঁচা যায় তার রাস্তা খুঁজতে দিন-রাত এক করে কাজ করছেন চিকিৎসকরা।

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস ইতোমধ্যে ২ শতাধিক দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে। বিশ্বব্যাপী প্রতিনিয়তই বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। এ পর্যন্ত বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৮,৭৪,৬৩৫ এবং মারা গেছে ৪৩,৪৩১ জন। এছাড়াও সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরে গেছেন ১,৮৪,৯৫২ জন। করোনা মোকাবেলায় বিশ্বজুড়ে চলছে লকডাউন।

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন