জেনেভাতে অনুষ্ঠিত হলো দ্বিতীয় ইউরোপীয় নির্মূল কমিটি সম্মেলন

112
gb

সর্ব ইউরোপীয় একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির দ্বিতীয় সম্মেলন ২৬ অক্টোবর সুইজারল্যান্ডের জেনেভাতে অনুষ্ঠিত হয় । সম্মেলনটি জেনেভা শহরের বাংলাদেশ দূতাবাস মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়।
কেন্দ্রীয় নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবির বাংলাদেশের গণহত্যার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি এবং রোহিঙ্গা শরণার্থী প্রত্যাবাসন প্রত্যাখ্যানের লক্ষ্যে কাজ করার বিষয়ে একটি মূল প্রবন্ধ পেশ করেন।
শাহরিয়ার কবিরের সর্বশেষতম ডকুমেন্টারি চলচ্চিত্র ‘ভয়েস অব কনসাইন্স’ এর স্ক্রিনিংয়ের মাধ্যমে সম্মেলনের উদ্ভোবন করা হয়।
সম্মেলনের সভাপতিত্ব করেন অল ইউরোপীয় নির্মূল কমিটির সভাপতি তরুণ কান্তি চৌধুরী এবং এর সেক্রেটারি আনসার আহমেদ উল্লাহ পরিচালনা করেন।
শাহরিয়ার কবিরের প্রাথমিক বক্তৃতার পরে ইউরোপীয় শাখার দেশীয় প্রতিবেদনগুলি পেশ করেন যথাক্রমে যুক্তরাজ্যের সহ সাধারণ সম্পাদক স্মৃতি আজাদ, সুইজারল্যান্ডের সাধারণ সম্পাদক পলাশ বড়ুয়া, নরওয়ের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ মাসুম, বেলজিয়াম সহ সাধারণ সম্পাদক এম এম মোর্শেদ এবং এম ফিনল্যান্ডের আহবায়ক মজিবুর দপ্তরি। নির্মল কমিটির কেন্দ্রীয় সচিব কাজী মুকুল দেশের প্রতিবেদনগুলি সারাংশ করে এবং ইউরোপে লক্ষ্য অর্জনের জন্য সাংগঠনিক পদক্ষেপের নির্দেশাবলী দেন।
আলোচনায় অংশ নেওয়া অন্যরা হলেন সুইজারল্যান্ড নির্মল কমিটির উপদেষ্টা মিয়া আবুল কালাম, জামাদার নজরুল ইসলাম, সুইজারল্যান্ডের নির্মূল কমিটির সহ-সভাপতি মাসুম খান দুলাল এবং সুইজারল্যান্ডের সংখ্যালঘু কাউন্সিলের সভাপতি অরুণ বড়ুয়া।
সম্মেলন ইউরোপে চরমপন্থী নেটওয়ার্ক সম্পর্কে সচেতনতা তৈরি এবং এই গোষ্ঠীগুলির প্রচারিত হিংস্র মতবাদের বিরুদ্বে কৌশল গ্রহণ করা হয়।
এ ছাড়া বাংলাদেশের গণহত্যার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি এবং রোহিঙ্গা শরণার্থী প্রত্যাবাসীদের আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি নিয়ে ইউরোপে জনমত গঠনের কৌশল নিয়ে আলোচনাও করা হয়।
সব শেষে সুইস কমিটির সভাপতি রহমান খলিলুর ধন্যবাদ প্রদান করে সম্মেলনটি শেষ করেন।

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন