ডেঙ্গু প্রতিরোধ ও সচেতনতায় জেলাব্যাপী ক্রাশ প্রোগ্রাম অব্যহত চাঁপাইনবাবগঞ্জে ডেঙ্গু পরিস্থিতির উন্নতি

168

জাকির হোসেন পিংকু,চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি:
চাঁপাইনবাবগঞ্জে ডেঙ্গু পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে বলে জানিয়েছে জেলা প্রশাসন। শনিবার (১০’আগষ্ট) দুপুরে জেলা প্রশাসন এক বিবৃতিতে ও সিভিল সার্জন জাহিদ নজরুল চৌধুরী এক সাক্ষাৎকারে এ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানান।
জানা গেছে,চলতি মৌসুমে এ পর্যন্ত ৯৬ জন ডেঙ্গুজ্বরের রোগি সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। এর মধ্যে চিকিৎসা শেষে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে ৬০ জনকে। শনিবার(১০’আগষ্ট) ২ জন নতুন রোগি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। শনিবার দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন ২৫ জন। এ পর্যন্ত মোট ভর্তি রোগির মধ্যে ডায়াবেটিস,উচ্চ রক্তচাপসহ অনান্য রোগে আক্রান্ত সহ ১১ জনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য মূলত: রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে। ভর্তি রোগিরা শংকামুকক্ত জানিয়ে সিভিল সার্জন বলেন,পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে।


সিভিল সার্জন জাহিদ নজরুল চৌধুরী আরও জানান,পরিস্থিতির অবনতি ঘটেনি। গত কয়েকদিনে নতুন রোগি ভর্তি সংখ্যা কমে যাওয়া ও সূস্থ রোগি ছেড়ে দেয়ার পরিমান বেড়ে যাওয়ায় মোট ভর্তি রোগি কিছু কমে গেছে। তিনি বলেন, পুরো ঈদ জুড়ে আমি নিজে উপস্থিত খেকে পরিস্থিতি মোকাবিলা করব। ঈদ উপলক্ষে বাড়তি ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। ঈদে মানুষ বাড়ি ফিরতে শুরু করেছে। তবে পূর্বের আশংকার তুলনায় এসময় কম রোগিই ভর্তি হয়েছেন।
জেলা প্রশাসন ও হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে,আক্রান্ত রোগিদের প্রায় সকলেই ঢাকা বা দেশের অন্য এলাকায় আক্রান্ত হবার পর কিছুটা সূস্থ হলে দেশের বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জ ফিরে এসে হাসপাতালে ভর্তি হন।
এদিকে ডেঙ্গু প্রতিরোধ ও সচেতনতায় জেলাব্যাপী সর্বাত্মক ক্রাশ প্রোগ্রাম অব্যহত রয়েছে বলে জানিয়েছে জেলা প্রশাসন।এতে প্রশাসন,পুলিশ,সরকারী-বেসরকারী সংস্থা ও অফিস,উপজেলা পরিষদ,পৌরসভা,ইউনিয়ন পরিষদ,বিভিন্ন সংগঠন এমনকি ব্যক্তি পর্যায়ের অনেকেই অংশ নিচ্ছেন।
এই কর্মসূচীর মধ্যে রয়েছে মাইকিং,সভা, লিফলেট বিতরণ,র‌্যালী,শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রচারণা সহ জনসচেতনতামুলক বিভিন্ন কার্যক্রম। এছাড়া পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা ও ঔষধের মাধ্যমে মশক নিধন অভিযান অব্যহত রয়েছে।
জেলা প্রশাসন জানিয়েছে,জেলার সরকারী হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসার পর্যাপ্ত সূযোগ রয়েছে। প্রয়োজনে হাসপাতালে ভর্তি হতে বলা হয়েছে। এছাড়া প্রয়োজনে বেসরকারী হাসপাতাল ও প্যাথলজিতে পরীক্ষা নিরীক্ষার ক্ষেত্রে খরচ জেলা প্রশাসন বহন করবে বলেও জানানো হয়েছে। ##