রোজায় উচ্চরক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখবে যেসব খাবার

69

চলছে পবিত্র মাহে রমজান। ডায়াবেটিকস , উচ্চরক্তচাপসহ বিভিন্ন রোগীরা রোজার মাস এলেই চিন্তায় পড়ে যান। এসব অসুখ নিয়ে কীভাবে রোজা রাখবেন। তবে সচেতন হলে অবশ্যই রোজা রাখতে পারবেন।

উত্তেজনা, দুশ্চিন্তা, অধিক পরিশ্রম ও ব্যায়ামের ফলে রক্তচাপ বাড়তে পারে। ঘুমের সময় এবং বিশ্রাম নিলে রক্তচাপ কমে যায়। রক্তচাপের এ পরিবর্তন স্বাভাবিক নিয়মের মধ্যে পড়ে।

অধিকাংশ সময় রক্তচাপটা স্বাভাবিক মাত্রার ভেতরই থাকে। সাধারণত বয়স যত কম, রক্তচাপও তত কম হয়। যদি কারো রক্তচাপ স্বাভাবিক মাত্রার চেয়ে বেশি হয় এবং অধিকাংশ সময় এমনকি বিশ্রামকালীনও বেশি থাকে, তবে ধরে নিতে হবে, তিনি উচ্চ রক্তচাপের রোগী।

উচ্চরক্তচাপ কি?

উচ্চ রক্তচাপ ভয়ংকর পরিণতি ডেকে আনতে পারে। অনেক সময় উচ্চ রক্তচাপের কোনো প্রাথমিক লক্ষণ দেখা যায় না। নীরবে উচ্চ রক্তচাপ শরীরের বিভিন্ন অংশকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে। এ জন্যই উচ্চ রক্তচাপকে ‘নীরব ঘাতক’ বলা যেতে পারে। অনিয়ন্ত্রিত এবং চিকিৎসাবিহীন উচ্চ রক্তচাপ থেকে মারাÍক শারীরিক জটিলতা দেখা দিতে পারে।

উচ্চরক্তচাপ হলে কী কী জটিলতা হতে পারে

রক্তচাপ নিয়ন্ত্রিত না থাকলে শরীরের গুরুত্বপূর্ণ চারটি অঙ্গে মারাত্মক ধরনের জটিলতা হতে পারে। যেমন- হৃৎপিণ্ড, কিডনি, মস্তিষ্ক ও চোখ।

মেডিসিন বিশেষজ্ঞ গৌতম বরাটের মতে, কিছু খাবার রয়েছে যা উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে। আসুন জেনে এমনি কিছু খবার সম্পর্কে যা খেলে উচ্চরক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকবে।

গ্রিন টি

উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখে গ্রিন টি।গ্রিন টি শরীরের মেটাবলিজমকে বাড়ায় ও পলিফেনল ব্লাড প্রেশারকে অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে রাখে।

সেলেরি জুস

সেলেরিতে ৩-এন বিউটিলফথ্যালাইড থাকে। এটি রক্তবাহী নালির পেশীর প্রাচীরে চাপ কমাতে সাহায্য করে। যা রক্তচাপ বাড়তে পারে না বরং রক্তের চলাচল সহজ করে।

ব্রকোলি

ব্রকোলিতে থাকা ক্যালশিয়াম, পটাশিয়াম ও ম্যাগনেশিয়ামের রক্তচাপকে নিয়ন্ত্রণে রাখে।

বেদানার রস

বেদানার রস কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়, রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখে। তাই নিয়ম করে এই ফল খেতে পারেন।

কলা

কলা হচ্ছে পটাশিয়ামের ভালো উৎস।তাই কলা উচ্চ রক্তচাপের অন্যতম সেরা সমাধান।

পেঁয়াজ

রক্তবাহর প্রাচীরের উপর চাপ কমাতে সাহায্য করে প্রোস্টাগ্ল্যান্ডিন।তাই উচ্চ রক্তচাপের রোগীরা থেতে পারেন পেঁয়াজ।

ওটমিল

উচ্চ ফাইবারযুক্ত খাবার ওটমিল কোলেস্টেরলকেও ঠেকিয়ে রাখে। তাই ওটমিলকে রাখুন পাতে।

বিটের রস

পটাশিয়ামের প্রাচুর্য ও আয়রনের উপস্থিতির কারণে বিটের রস রক্ত তৈরিতে যেমন কাজে আসে, তেমনই রক্ত চলাচলেও বিশেষ সাহায্য করে।

সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা

মন্তব্য
Loading...