শার্শায় টাকার বিনিময়ে টিকার কার্ড বিক্রীর অভিযোগ

179

ইয়ানূর রহমান  ||

যশোরের শার্শায় চড়ামূল্যে বিক্রী হচ্ছে টিকার কার্ড। এতে অসহায় হয়ে পড়েছে দীনমজুর শ্রেনীর মানুষ। তারা ধারদেনা করে হলেও জন্ম নিবন্ধনের জন্য চড়া দাম দিয়ে টিকারকার্ড নিতে বাধ্য হচ্ছে।

ভবানীপুর গ্রামের ইউনুছ আলীর অভিযোগ, তার মেয়ে লাইচা আক্তারের টিকার কার্ড আনতে গেলে বøক গ/১ এর আব্দুর রহমান কেন্দ্রের স্বাস্থ্যসহকারি / টিকাদানকর্মী কামরুজ্জামান ৬ হাজার টাকা দাবীকরে। পরে অনেক অনুনয় বিনয়ের মাধ্যমে ৭ শ’ টাকা দিয়ে টিকার কার্ড সংগ্রহ করেন।

শার্শার রুদ্রপুর বাজারের সার ব্যাবসায়ী সোহারব হোসেন জানান, ইউনুচ আলী রবিবার সন্ধ্যায় তার দোকানে এসে দুঃখ প্রকাশে করে বলেন ভাই আমার মোটেও দিন চলেনা তার ওপরে ৭ শ’ টাকা দিয়ে আমাকে টিকার কার্ড নিতে হলো। ১ হাজার টাকার নিচে দেবেইনা। অনেক কাকুতিমিনতি করে ৭শ’টাকা দিয়ে টিকার কার্ড সংগ্রহ করেছি।

কায়বা ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য হবিবর রহমান কামরুজ্জামান এর বিরুদ্ধে টাকা নিয়ে টিকারকার্ড প্রদানের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ।

এ ব্যাপারে কামরুজ্জামান এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, তার কাছ থেকে কোনো টাকা নেয়া হয়নি। ইউনুচ আলি কলারোয়া থানার কাঁদপুর গ্রামের বাসিন্দা। ইউপি সদস্য ত্যায়নপত্র দেয়ার পরে তাকে কার্ড প্রদান করা হয়েছে।

এ ব্যপারে থানাস্বাস্থ্য কেন্দ্রে যোগাযোগ করে জানাযায়, টিকার কার্ডে টাকা নেয়ার কোনো বিধান নেই। স্থানীয়রা এব্যাপারে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা নেয়ার জোর দাবী জানিয়েছেন।

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন