মুখের যত্নে দরকার শুধু একটা চা চামচ!

269
gb

মুখের দাগ কিংবা ব্রন দূর করার জন্য কত টাকাই না খরচ করেছেন। কসমেটিক সার্জারি করলেও তা সুফল বয়ে আনবে কিনা তা বলা যায় না।

যদি হয় তো আপনি ভাগ্যবান। অথচ এক জার্মান ফিজিশিয়ান এবং কসমেটোলজিস্ট রেনে কোচ অতি সাধারণ পদ্ধতির কথা বলেছেন। অতি খরচবহুল মুখের চিকিৎসার পরিবর্তে একর আপনার দরকার কেবল একটা চা চামচ।

কিন্তু কীভাবে? দুটো স্টেইনলেস স্টিল চা চামচ প্রস্তুত রাখতে পারেন। একটাতেও চলবে। এক কাপ ঠাণ্ডা পানি আর কয়েকটি বরফের কিউব আর একটা বাটিতে তেল লাগবে। আপনি চাইলে এসেনশিয়াল বা সানফ্লাওয়ার কিংবা লিনসিড তেল ব্যবহার করতে পারেন।

এবার যা করতে হবে জেনে নিন
১. প্রথমেই মুখ ভালো করে ধুয়ে নিন। ময়লা ধুতে হবে।

আবার কোনো মেকআপ থাকলেও তা পরিষ্কার করে নিতে হবে। এবার কোমলতা ফিরিয়ে আনতে ময়েশ্চার ব্যবহার করুন।

২. চামচ দুটো জীবাণুনাশক দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে। এবার ঠাণ্ডা পানির গ্লাসে চামচ চুবিয়ে নিন। খেয়াল রাখবেন গ্লাসে যেন অবশ্যই বরফ থাকে।

৩. ঠাণ্ডা অবস্থায় চা চামচ চোখের পাতার ওপর কয়েক সেকেন্ড রেখে দিন। একই কাজ ৫ বার করুন।

৪. একইভাবে একই কাজ চোখের নিচের পাতায় করুন। এতে চোখের ফোলাভাব কমে আসবে। এ কাজে অবশ্যই চোখের ওপর না নিচে ঠাণ্ডা চামচ ব্যবহার করতে হবে।

ম্যাসাজের মাধ্যমে শুরু করুন 
১. তেলটাকে গরম করে নিন। ঠাণ্ডা হতে দিন। এটা দিয়েই মুখ ম্যাসাজ করতে হবে। পরিমাণমতো তেল নিয়ে তা মুখে আলতো করে মাখতে থাকুন।

২. কপাল থেকে শুরু করুন। নাকের ওপরে চলে আসুন এবং নাকের ডগায় তেল দিয়ে হালকা ম্যাসাজ করুন।

৩. মুখে অর্ধবৃত্তাকারে তেল ম্যাসাজ করতে থাকুন। ঠোঁটের পাশ থেকে চোয়াল বরাবর এ কাজটি করতে থাকুন।

৪. ঠোঁটের ওপর নাকের নিচে ম্যাসাজ করুন।

মনে রাখবেন 
১. যে কাজগুলো করছেন তা অন্তত ১০ বার করতে হবে।

২. যদি চামচ ঘষার সময় আটকে যেতে থাকে তাহলে তাতে তেল লাগিয়ে নিন।