রাশিয়া ও ইউক্রেনের মধ্যে নতুন করে উত্তেজনা

169
gb

জিবি নিউজ 24 ডেস্ক//

ক্রিমিয়া উপদ্বীপে গুলি করে ইউক্রেনের যুদ্ধজাহাজ দখল ও নাবিকদের আহত করার ঘটনায় রবিবার থেকে রাশিয়া ও ইউক্রেনের মধ্যে নতুন করে উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। পরিস্থিতি মোকাবেলায় সামরিক আইন জারি করার ব্যাপারে ইউক্রেনের পার্লামেন্ট সদস্যদের আজ ভোট দেয়ারও কথা ছিল।

অন্যদিকে রাশিয়া এ বিষয়ে কথা বলতে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে জরুরি বৈঠক ডেকেছে। জাতিসংঘে মার্কিন দূত নিকি হেলি জানিয়েছেন, নিউইয়র্ক সময় সোমবার বেলা ১১টায় (বাংলাদেশ সময় রাত ১০টা) বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হবে।

রবিবার ক্রিমিয়া উপদ্বীপে ইউক্রেনের ৩টি যুদ্ধজাহাজে গুলি করে নিজেদের দখলে নেয় রাশিয়া। এতে ইউক্রেনের যুদ্ধজাহাজের বেশ কয়েক নাবিক আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে বিবিসি।

এ ঘটনায় দুই দেশই একে অপরকে দায়ী করছে। রুশ সেনাদের দাবি, তাদের জলসীমায় ইউক্রেনের এই নৌ-যানগুলো প্রবেশ করলে তাদের ওপর গুলি চালায় রাশিয়ার নৌ-বাহিনী। পরে দু’টি যুদ্ধজাহাজ এবং একটি টাগবোট জব্দ করা হয়।

রুশ বাহিনী কার্শ প্রণালীতে অবস্থিত সেতুর নিচে একটি ট্যাংকার আড়াআড়িভাবে বসিয়ে পথ বন্ধ করে রেখেছিল। সেটা থেকেই ইউক্রেনীয় গানবোট ও টাগবোটের ওপর গুলিবর্ষণ করা হয়েছিল।

এই কার্শ প্রণালীই আজভ সাগরে যাওয়ার একমাত্র পথ। সমঝোতার ভিত্তিতে রাশিয়া ও ইউক্রেন উভয়েই এটি ভাগাভাগি করে ব্যবহার করে।

তবে ইউক্রেনীয় নৌ-বাহিনী দাবি করছে, জাহাজ দু’টি ইউক্রেনের ওডিসা বন্দর থেকে মেরিপুল বন্দরে স্থানান্তর করা হচ্ছিল আর বিষয়টি আন্তর্জাতিক আইন অনুসারে রাশিয়াকে আগেই জানানো হয়েছিল।

ইউক্রেনের জাতীয় নিরাপত্তা ও প্রতিরক্ষা পরিষদের বৈঠকে দেশটির প্রেসিডেন্ট পেত্রো পোরোশেংকো রাশিয়ার এই কাজকে ‘অপ্ররোচিত এবং পাগলামি’ বলে উল্লেখ করেছেন।