যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগ ইরানের

58

জিবি নিউজ 24 ডেস্ক//

ইরানি জনগণের দৈনিক খাবার নিশ্চিত করতে হলে, দেশটির সরকারকে যুক্তরাষ্ট্রের কথা অক্ষরে অক্ষরে শুনতে হবে- বৃহস্পতিবার বিবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে এমন মন্তব্য করেন, মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মাইক পম্পেও। তিনি স্পষ্ট করে করে বলেন, ইরানের নেতৃত্বকেই এখন সিদ্ধান্ত নিতে হবে তারা কোন পথ বেছে নেবেন।

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মাইক পম্পেওর ওই মন্তব্যের পরই যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগ তুলেছে ইরান।

একইসঙ্গে ইরান বিরোধী বক্তব্যের জন্য মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর তীব্র সমালোচনা করেছেন ইরানি পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফ। এক টুইট বার্তায় তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র একের পর মানবতাবিরোধী কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছে। এসময় ইয়েমেনে হামলার জন্য সৌদি জোটকে মার্কিন সহায়তারও নিন্দা জানান তিনি।

জাভেদ জারিফ বলেন, যুক্তরাষ্ট্র সব সময়ই বলে আসছিল, তারা ইরানি জনগণের বিরুদ্ধে নয়, সরকারের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিচ্ছে। কিন্তু মাইক পম্পেওর বক্তব্যে তাদের আসল উদ্দেশ্য প্রকাশ পেয়েছে। শুধু ইরান নয়, ইয়েমেনে হাজার হাজার মানুষকে হত্যার পেছনেও তাদের মদদ রয়েছে। তাদের বোমা ব্যবহার করেই স্কুল শিক্ষার্থীকে হত্যা করা হচ্ছে। আমি মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে জানতে চাই, আপনার কি কোনো লজ্জা নেই?

এদিকে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহালের পর ইউরোপীয় ইউনিয়নের পদক্ষেপের প্রশংসা করেছেন ইরানি উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্বাস আরাকাচি। তবে তেহরানের প্রত্যাশামতো দ্রুত পদক্ষেপগুলো বাস্তবায়িত হচ্ছে না বলে উদ্বেগ প্রকাশ করেন তিনি। পরমাণু চুক্তি রক্ষা এবং মার্কিন নিষেধাজ্ঞার ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে ইরানকে প্রয়োজনীয় সহযোগিতারও আহ্বান জানান তিনি।

এর মধ্যেই আন্তর্জাতিক পরমাণু শক্তি সংস্থা জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্র বেরিয়ে গেলেও, ইরানি কর্তৃপক্ষ এখনো পরমাণু চুক্তি সব শর্ত মেনে চলছে। শুক্রবার এক বিবৃতিতে সংস্থার প্রধান ইউকিয়া আমানো জানান, চুক্তির শর্ত অনুযায়ী ইরান এখনো আইএইএ-কে তাদের পরমাণু স্থাপনাগুলো পরিদর্শনের সুযোগ দিচ্ছে। দেশটিকে পরমাণু অস্ত্র তৈরি থেকে বিরত রাখতে বর্তমান চুক্তি রক্ষার বিকল্প নেই বলেও জানান তিনি।

মন্তব্য
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More