প্রধানমন্ত্রীর প্রতি ন্যাপ : ঈদের আগেই গ্রেফতারকৃত শিক্ষার্থীদের মুক্তি দিন

189
gb

নিরাপদ সড়ক আন্দোলনে যেসব শিক্ষার্থীদের গ্রেফতার করা হয়েছে ঈদের পূর্বে তাদের ক্ষমতা করে নিঃশর্তভাবে মুক্তি দিয়ে তাদের পরিবার-পরিজনের সাথে ঈদুল আজহা উদযাপনের সুযোগ দিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ।

 

শনিবার গণমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে পার্টির চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গানি ও মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট এই আহ্বান জানান।

 

বিবৃতিতে তারা নিরাপদ সড়ক আন্দোলনে যেসব শিক্ষার্থীদের গ্রেফতার করা হয়েছে- তাদের নিঃশর্ত মুক্তির সকল ব্যবস্থা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী করবেন আশা করে বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব কোমলমতি শিক্ষার্থীদের নিকট মায়ের সমান। তিনিও যথার্থ উপলব্ধি করে বলেছেন, আমাদের সন্তানরা আমাদের চোখ খুলে দিয়েছে। তিনি মাতৃজ্ঞানে শিক্ষার্থীদের দাবিও মেনে নিয়েছেন। তার এই মহানুভবতাকে সম্মান দেখিয়ে হলেও গ্রেফতার হওয়া শিক্ষার্থীদের মুক্তি দেয়া উচিত।

 

নেতৃদ্বয় আরো বলেন, এতবড় একটা সফল এবং যৌক্তিক আন্দোলনের মধ্যে- কোথাও কোনো অনাকাক্ষিত ঘটনা ঘটতেই পারে। তার মধ্যে কোনো কোনো আন্দোলনকারী শিক্ষার্থী অবুঝের মতো হয়তো নিজেদের জড়িয়ে ফেলেছে। কিন্তু যখন তাদের ঘরে এবং ক্লাসে ফিরে যাবার জন্য বলা হয়েছে- তখন তারা রাস্তা থেকে ফিরেও গেছে। এদেশের সর্বস্তরের মানুষ এবং দলমত নির্বিশেষে যে শিক্ষার্থীদের অভিনন্দন জানিয়েছে- এখন তাদের মধ্যে আর কাউকে গ্রেফতার করে রাখা সিঠিক হবে না। এখানে কেউ যদি কোনো ভুল করে থাকে প্রধানমন্ত্রী যেনো তাদের মাতৃজ্ঞানে ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে ধেখবেন বলে আশা করি।

 

নেতৃদ্বয় আরো আশা প্রকাশ করেন যে, গ্রেফতার হওয়া ৯৭ শিক্ষার্থীকে ছেড়ে দিয়ে প্রধানমন্ত্রী উদারতা দেখাবেন। শিক্ষার্থীরা সংস্কার চেয়েছে। সংস্কার একটি ভালো শব্দ। এর মানে হচ্ছে আরও কী করে ভালো করা যায়। বিশ্বের সব দেশেই সংস্কার একটি ভালো শব্দ।

 

তারা বলেন, জনগণের ব্যাপক সমর্থনের কারণে সরকার কোটা সংস্কার এবং নিরাপদ সড়কের দাবি মেনে নেয়ার ঘোষণা দিলেও এখন পর্যন্ত কার্যকর কোনো পদক্ষেপই গ্রহণ করেনি। আন্দোলনকারী ছাত্রছাত্রীদের অন্যায়ভাবে জেলে আটকে রেখে তাদের ওপর জুলুম করছে সরকার। ফলে দেশের জনগণ ও ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে ক্ষোভের আগুন ধূমায়িত হচ্ছে।