আমরা খাদ্য নিরাপত্তাহীনতায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করছি : রিজভী

2,014
gb

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, আমরা খাদ্য নিরাপত্তাহীনতায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করছি। অবিলম্বে চালের বাজার স্থিতিশীল রাখতে চালের সরবরাহ বৃদ্ধির জোর দাবি জানাচ্ছি।

আজ মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে তিনি এসব কথা বলেন।

রিজভী বলেন, সরকারপ্রধান রাজনৈতিক টুর্নামেন্টে সবদিক থেকে হেরে যেতে শুরু করার ফলে মিথ্যাচার করে দেশবাসীর ক্ষুধা ও ভাগ্য নিয়ে ছিনিমিনি খেলতে শুরু করেছে।

তিনি বলেন, বর্তমানে দেশে যে খাদ্য সংকট চলছে, যেভাবে লাফিয়ে লাফিয়ে চালের দাম বাড়ছে, যেভাবে অভিযানের নামে ব্যবসায়ীদের মধ্যে আতংকের পরিবেশ সৃষ্টি করা হচ্ছে, খাদ্য নিয়ে প্রধানমন্ত্রী থেকে শুরু করে সরকারের মন্ত্রীরা যেভাবে মিথ্যাচার করছেন, তাতে প্রকৃত ও প্রকট সংকট আড়াল করা যাবে না।

বর্তমানে চালের দাম বাংলাদেশের ইতিহাসের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে মন্তব্য করে রিজভী বলেন, বর্তমানে মোটা চালের দাম ৫৫ টাকা, মিনিকেট চাল বিক্রি হচ্ছে ৬৫-৭০ টাকা পর্যন্ত। অথচ বিএনপি শাসনকালের শেষ দিনেও মোটা চালের দাম ছিল ১৬ টাকা।

বর্তমানে চালের দাম বৃদ্ধি পেয়ে নিম্ন আয়ের সাধারণ মানুষ অনাহার-অর্ধাহার থেকে তাদের আসন্ন দিনগুলো নিয়ে আতংকিত হয়ে পড়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

তিনি বলেন, গণমাধ্যমে খবর বেরিয়েছে, সরকারি গোডাউন খালি, বেসরকারিভাবেও চালের তেমন মজুদ নেই। তারপরও প্রধানমন্ত্রী থেকে শুরু করে সরকারের মন্ত্রীরা বলছেন, কোটি কোটি টন চালের মজুদ আছে, তাহলে চালের বাজারের অস্থিরতা কমছে না কেন?

তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের পরম বন্ধু ভারত বাংলাদেশে চাল রপ্তানি বন্ধ করে দিয়েছে। ভারত সরকার সুস্পষ্টভাবে বলেছে, ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে ১৫ নভেম্বর দুই মাস তারা কোনো চাল বাংলাদেশে রপ্তানি করবে না।

ক্ষমতা ধরে রাখার গর্ব খর্ব হওয়ার ভয়ে বাংলাদেশ সরকার ভারতের চাল রপ্তানি বন্ধ করার প্রতিবাদ করতেও ভয় পাচ্ছে।