অবুঝ তাহমিদ কি বাঁচবে না ?

337
gb

আহমদউর রহমান ইমরান, রাজনগর প্রতিনিধি :
আট মাস বয়সের ছোট্ট শিশু তাহমিদ। পৃথিবীর আলোর মুখ দেখার আগেই তার বুকে বাসা বেধেছে হৃদরোগ। হৃদযন্ত্রে ছিদ্রের কারণে সাভাবিক ভাবে বেড়ে উঠছে না। কাঁপছে তার বুক। দিনমজুর বাবার পক্ষে ব্যবহুল এ চিকিৎসা করানো দু:স্বাধ্য। এরপরও হাল ছেড়ে দেননি। নিজের জমানো টাকা আর ধার-দেনা করে যথা সাধ্য চিকিৎসা চালিয়ে যাচ্ছেন। ডাক্তারদের কথা অনুযায়ী তাহমিদের চিকিৎসায় ৩ লক্ষ টাকার মত ব্যয় হবে। কিন্তু এতো টাকা কোথায় পাবেন। পানি উন্নয়ন বোর্ডের বাঁধের পাশে ঘর বানিয়ে বসবাস করলেও নিজের কোন জমিজমা নেই। শরীর শক্তিই তার একমাত্র ভরসা।
মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলার মনসুরনগর ইউনিয়নের বকসিকোনা গ্রামের আমান মিয়া ও ছামিনা বেগম দম্পতির সন্তান তাহমিদ (৮ মাস)। টাকার অভাবে চিকিৎসা করাতে পারছেন না তার পরিবার। গত বছরের ২৬ আগষ্ট জন্মগ্রহণ করে তাহমিদ। তাহমিদের জন্মে দিনমজুরের ঘর আলোকিত হলেও কিছু দিনের মধ্যেই নেমে আসে অন্ধকার। আনন্দ টিকেনি বেশী দিন। জন্মের কিছু দিন পর চিকিৎসক জানালেন তাহমিদ জন্মগত ভাবে হৃদরোগে আক্রান্ত। তার হৃদযন্ত্রে দুটি ছিদ্র রয়েছে। ইতিমধ্যে তার চিকিৎসার প্রাথমিক ধাপসহ রোগ নির্ণয় করতে গিয়ে দিন মজুর বাবা আমান মিয়া নি:স্ব হয়েছেন। চিকিৎসার ব্যয় ভার বহনে অক্ষম। তাই তাহমিদের চিকিৎসায় সমাজের বিত্তবানদের সাহায্য প্রয়োজন।
তাহমিদের পিতা আমান মিয়া বলেন, চিকিৎসকরা জানিয়েছেন হার্টের অপারেশন প্রয়োজন। এজন্য যে টাকা লাগবে তা যোগার করা আমার পক্ষে সম্ভব নয়। সমাজের বিত্ত্ববানরা এগিয়ে এলে হয়তো আমার তাহমিদ পৃথিবীর আলোয় বাঁচতে পারবে। তাহমিদের চিকিৎসার জন্য সাহায্য পাঠাতে পারেন। সাহায্য পাঠাতে: বিকাশ: ০১৭০৫-০৮১৪৬১ ( মা-বাবা)।