তারল্য সংকট মেটাতে সিআরআর কমছে এক শতাংশ

242
gb

জিবিনিউজ ডেস্ক:: তারল্য সংকট কাটাতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর নগদ জমা সংরক্ষণের হার এক শতাংশ কমানো হয়েছে। ডিসেম্বর পর্যন্ত এ হার সাড়ে ৫ শতাংশ থাকবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী। দুপুরে হোটেল সোনারগাঁওয়ে ব্যাংক উদ্যোক্তাদের সংগঠন বিএবির সঙ্গে বৈঠক শেষে এসব কথা জানান তিনি। এতে ঋণের সুদের হারও শিগগিরই এক অংকে নেমে আসবে বলে জানান ব্যাংক মালিকরা।

ঋণ অনিয়মে আস্থার সংকটে পড়ে ফারমার্স ব্যাংক। টাকা তুলতে শুরু করেন আমানতকারীরা। জলবায়ু তহবিলের অর্থ ফেরত না পাওয়ায় বেশকিছু সরকারি প্রতিষ্ঠানও বেসরকারি ব্যাংক থেকে টাকা তুলে রাখছেন রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন ব্যাংকে।

এর পরপরই অলস টাকার পাহাড় থেকে হঠাৎ তারল্য সংকটে পড়ে বেসরকারি ব্যাংক। অন্যদিকে ঝুঁকি সামাল দিতে সাড়ে ৬ শতাংশ হারে বাংলাদেশ ব্যাংকে নগদ জমা রাখছে তারা। এতে মোট ৬৫ হাজার কোটি টাকা আটকে কেন্দ্রীয় ব্যাংকে।

এমতাবস্থায় বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ও অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে জরুরি বৈঠকে বসেন উদ্যোক্তারা। পরে অর্থমন্ত্রী জানান, নগদ জমার হার এক শতাংশ কমলেই ১০ হাজার কোটি টাকা আসবে ব্যাংকগুলোর হাতে।

তবে এই অর্থ বেসরকারি ব্যাংকে গেলে মূল্যস্ফীতি বাড়বে না বলেও আশ্বস্ত করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। তারল্য সঙ্কট দূর হলে ব্যবসায়ীদের আবারো সিঙ্গেল ডিজিটে ঋণ দেয়া সম্ভব হবে বলে আশা করেন বিএবি সভাপতি।

পাশাপাশি বেসরকারি ব্যাংকগুলোতে সরকারি প্রতিষ্ঠানের ৫০ শতাংশ আমানত রাখতে প্রজ্ঞাপনও জারি করেছে অর্থমন্ত্রণালয়।