কৃষ্ণকলি আমি তারেই বলি

694
gb

মধুলীনা কলকাতা ||জিবি নিউজ টোয়েন্টিফোর ||

তন্বী কালো মেয়েটি রেস্টুরেন্টে কাজের জন্য হন্যে হয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছিল।সব মালিকের একই কথা,এখানে লোক লাগবে না,অন্য কোথাও যাও।অনেক খোঁজার পর কোনোমতে একটা রেস্টুরেন্টে কাজ ঠিক করে সে । কিন্তু মালিক প্রথম দিনই বলে দিয়েছিল,দেরি করে আসলে কাজ থেকে বাতিল।
 এই সব কথা মাথায় রেখে মেয়েটি রেস্টুরেন্ট কাজ করতে থাকে।খাবারের অডার নেওয়া থেকে শুরু করে টেবিলে খাবার দেওয়া,খাবার শেষে টেবিল পরিষ্কার করা।আবার কাজে অদক্ষতায় বকাও খাচ্ছে প্রতিনিয়ত।কখনও কাস্টমারের সামনে কিছু আনতে গিয়ে খাবার গায়ে পড়ে গেলে তারা নালিশ করছে মালিককে তার নামে।
সহকমীর্র জন্মদিনে তার বাসায় গিয়ে কিছু খেতে পারছে না সবাই লক্ষ্য করছিল কৃষ্ণকলিকে বললে সে বলত তার নাকি পেট ভরা।কোথাও তাদের সাথে ঘুরতে গেলে ছোট কম দামি গাড়িতে তার যে অসুবিধা হচ্ছে সেটা কাউকে বুঝতে দিতে চাইতে না,ভেবে নিয়েছিল সে আর দশটা মানুষের মতোই।কিন্তু এসব সহকর্মীরা লক্ষ্য করছিল।গায়ের রং কালো ছিল বলে ছেলেরাও অতো পাত্তা দিতো না।এইভাবেই দিন যাচ্ছিল।
একদিন সহকমীর্র কেউ একজন দেখল কালো মেয়েটি রেস্টুরেন্ট থেকে বেরোনোর পর ছয়জন বিশালদেহী মানুষ তাকে ঘিরে রাখে।এইকথা রেস্টুরেন্ট থেকে কানাকানি হতে চলে যায় সাংবাদিকদের কাছে।
আসল পরিচয় সামনে আসে।কৃষ্ণকলি আসলে আর কেউ নয় মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার ছোট মেয়ে সাশা ওবামা।নিজের পরিচয় লুকিয়ে গ্রীষ্মকালীন ছুটির ফাঁকে ম্যাসাচুসেটসের মার্থাস ভিনিয়ার্ড নামে এই দ্বীপের রেস্টুরেন্টে কাজ করতেন।
বারাক ওবামার স্ত্রী মিশেল ওবামা বলেন তার সন্তানদের রাজকীয় বিলাসিতা ছেড়ে আর দশটা সাধারণ মানুষের মতোই বাঁচতে শিখতে হবে।