গোবিন্দগঞ্জে বিয়ের প্রলোভনে অন্তঃসত্ত্বা অতঃপর  গর্ভপাতের অভিযোগে মামলা

92
gb
গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ।। জিবি নিউজ।।
গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে বিয়ের প্রলোভনে দৈহিক সম্পর্ক করে অন্তঃসত্বার অভিযোগ।
 দুই মাসের অন্তসত্বা নারীর গর্ভপাত ঘটানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে।
এ ঘটনায় ওই নারী সোমবার দুপুরে গাইবান্ধা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুন্যালে তিন জনকে অভিযুক্ত করে মামলা করেন।
অভিযুক্তরা হলো-বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার লক্ষীকোলা (বাদারপাড়া) গ্রামের নারায়ন চন্দ্রের ছেলে উদয় চন্দ্র (৩০), গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের রসুলপুর গ্রামের জয়নালের ছেলে আজাদুল ইসলাম (৪০) ও শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের নার্স মলি বেগম (৪৫)।
মামলা সূত্রে জানা যায়,শিবগঞ্জের চকিরঘাট জয়জুট মিলের ম্যানেজার পদে উদয় চন্দ্র ও আজাদুল ইসলাম সুপারভাইজার পদে চাকুৃরি করে।একই মিলে স্বামী পরিত্যক্ত স্বল্প বয়সী এ নারী শ্রমিকের কাজ করতেন। সেখানে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করার এক পর্যায়ে উদয় চন্দ্র তার রুপ যৌবনের প্রতি আকৃষ্ট হন। তিনি মোসলমান হয়ে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে তার সাথে দৈহিক সম্পর্ক গড়ে তোলেন। এতে মেয়েটি দুই মাসের অন্তসত্বা হয়।
এদিকে, উদয় চন্দ্র বিষয়টি জেনে গর্ভপাত ঘটানোর চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে ২আগস্ট দুপুরে মারধর করলে তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়।
 ৪ আগস্ট বিকালে বিয়ের কথা বলে হাসপাতাল থেকে তাকে আজাদুলের বাড়ীতে নিয়ে মলির মাধ্যমে গর্ভপাত ঘটান।
ট্রাইবুন্যালের এ্যাডভোকেট শাহনেওয়াজ খান জানান, আদালতের বিচারক বিষয়টি তদন্তের জন্য মামলার নথিপত্র গোবিন্দগঞ্জ থানায় পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন।

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন