আজ ঢাকায় আসছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী

53
gb

মো:নাসির, বিশেষ প্রতিনিধি জিবি নিউজ ২৪ ||

ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুব্রামানিয়াম জয়শঙ্কর দ্বিপক্ষীয় সফরে ঢাকা আসছেন সোমবার (১৯ আগস্ট) রাতে। আসন্ন সফরে দুই পক্ষের মধ্যে নতুন কোনো সমাঝোতা স্মারক বা চুক্তি সই হবে না। তবে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে তার সঙ্গে আলোচনা করবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন। ঢাকা সফর শেষে আগামী ২১ আগস্ট নয়া দিল্লি ফিরে যাওয়ার কথা রয়েছে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী হওয়ার পর এস জয়শঙ্করের এটাই হবে প্রথম ঢাকা সফর। এর আগে ২০১৭ সালেও দুই দিনের সফরে ঢাকা এসেছিলেন তিনি। তবে ওইসময় তিনি ভারতের পররাষ্ট্র সচিবের দায়িত্বে ছিলেন। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্করকে সোমবার রাতে হযরত শাহজালাল আর্ন্তজাতিক বিমানবন্দরে ফুলেল অভ্যর্থনা জানাবেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন। পরদিন মঙ্গলবার (২০ আগস্ট) রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন যমুনাতে দুই পররাষ্ট্রমন্ত্রী দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করবেন। এ ছাড়া ঢাকা সফরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ সরকারের একাধিক প্রতিনিধির সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব নেওয়ার পর এস. জয়শঙ্করের সঙ্গে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবদুল মোমেনের প্রথম সাক্ষাৎ ও বৈঠক হয় গত ১৪ জুন। তাজিকিস্তানের রাজধানী দুশানবে পঞ্চম শীর্ষ সিকা (কনফারেন্স অন ইন্টার‌্যাকশন অ্যান্ড কনফিডেন্স বিল্ডিং মেজারস ইন এশিয়া) সম্মেলনের ফাঁকে সাইড লাইনে তাদের সেই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

ওই সময়ে বহুল প্রত্যাশিত তিস্তা চুক্তি সম্পাদন ও সীমান্তে হত্যাকাণ্ড বন্ধে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ভারতীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রী রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে ভারতের সক্রিয় সমর্থন ও সহযোগিতাও কামনা করেন। ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় সহযোগিতার আশ্বাস দিয়ে বলেন, প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে ভারতের সদ্ভাব ও সম্পর্ক উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সরকার পরিণত সংবেদনশীলতা (mature sensitivity) প্রদর্শন করেছে।

ভারতের পূর্বমুখী অর্থনৈতিক কূটনীতির প্রবেশদ্বার (gateway) হিসেবে বাংলাদেশের অনন্য সম্ভাবনা ও ভূ-কৌশলগত সুবিধার কথা উল্লেখ করে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর তখন আরও বলেন, ‘বিমসটেককে শক্তিশালী করলে তা দুই দেশের জন্য মঙ্গলজনক হবে। ভারত আঞ্চলিক সংযোগের (regional connectivity) ওপর সমধিক গুরুত্ব আরোপ করে থাকে।’

প্রসঙ্গত, ড. এ কে আবদুল মোমেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর ভারতের আমন্ত্রণে নয়া দিল্লিতে গত জানুয়ারিতে প্রথম বিদেশ সফর করেন। এর আগে, ২০১৪ সালে সুষমা স্বরাজ ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব নেওয়ার পর ওই বছরের ২৫ জুন প্রথম বিদেশ সফরে ঢাকায় এসেছিলেন।

gb
মন্তব্য
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More