সারা দেশে গাছ লাগাতে অন্যন্য উদ্যোগ

222
gb

হাকিকুল  ইসলাম খোকন ||

২০০১ সালে এসএসসি পরীক্ষা দিয়েছেন সবাই। একই স্কুলে না পড়লেও ফেসবুকের কল্যাণে দেশ বিদেশে ছড়িয়ে ছিটেয়ে থাকা সবাই বন্ধু। ফেসবুক গ্রুপ সবাইকে এক করছে বন্ধুত্বের বন্ধনে। সেই বন্ধনের সূত্র ধরে আজ আবার সবাই দেশের বিভিন্ন স্থানে গাছ লাগিয়েছেন এক যোগে। পর্যায়ক্রমে দেশের বিভিন্ন স্থানে লাগানো হবে গাছ।

এসএসসি ২০০১ ও এইচএসসি ২০০৩ বাংলাদেশ”ফেসবুক গ্রুপের এডমিন মুহিত রহমান চৌধুরী বন্ধুদের উদ্দেশ্যে পোষ্ট করেন সবাই এক যোগে সারা দেশে গাছ লাগাতে।সারা দেশে থাকা গ্রুপের সদস্যরাও সানন্দে উদ্যোগ নেন গাছ লাগানোর।খবর বাপসনিঊজ ।

শুক্রবার বিকেলে চট্টগ্রামে বৃক্ষরোপন কর্মসূচি উদ্বোধন করা হয়। বৃক্ষরোপন কর্মসূচিতে ১ হাজার গাছ দিয়ে সহায়তা করে বাংলাদেশ বন গবেষণা ইন্সটিটিউট। চট্রগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন ডা. আজিজুর রহমান সিদ্দিকী গাছ লাগিয়ে এ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন।

সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে বন্ধুদের মাধ্যমে গাছ লাগনোর এ উদ্যোগকে স্বাগত জানান চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী। তিনি বলেন, সবাই মিলে গাছ লাগালে দেশের প্রাকৃতিক সৌন্দয্য বৃদ্ধি পাবে। একই সঙ্গে দেশের পরিবেশের উন্নয়ন ঘটবে।

এ উদ্যোগ প্রসঙ্গে এসএসসি ২০০১ ও এইচএসসি ২০০৩ বাংলাদেশ”ফেসবুক গ্রুপের এডমিন মুহিত রহমান চৌধুরী বলেন, আমরা চেয়েছি আমাদের বন্ধুত্বকে কাজে লাগিয়ে সামাজিক কার্যক্রমে অংশগ্রহন করতে। আমরা শুধু নিজেরদের কথাই ভাবছি না। আমরা  আগামী প্রজন্মের জন্য সুন্দর একটি দেশ রেখে যেতে  চাই।

মুহিত রহমান চৌধুরী বলেন, চট্টগ্রামে আনুষ্ঠানিক ভাবে উদ্বোধন হলেও সারা দেশে থাকা আমাদের গ্রুপের সদস্যরিা নিজেদের সাধ্য মত  গাছ লাগিয়েছেন। কেউ স্কুলে, কেউ বাড়িতে, কেউ রাস্তার পাশে- যে যেখানে পেরেছেন সেখানেই গাছ লাগিয়েছেন। আমরা বিভিন্ন স্কুলে বাচ্চাদের মাঝে গাছ বিতরণ করেছি। বাচ্চারও যেন গাছের সুরক্ষায় আগ্রহী হয়।

 চিত্রা নদীর পাড়ে একটি স্কুলের শিক্ষক লিমা আহমেদ। ফেসবুক গ্রুপে বন্ধুদের আহবান তিনি ৪০০ জন শিক্ষার্থীদের সঙ্গে নিয়ে বিদ্যালয়ের চারপাশে গাছ লাগিয়েছেন। লিমা আহমেদ বলেন, আমি একা বৃক্ষ রোপন করি নাই, আমার বিদ্যালয়ের ৪০০ জন ছাত্র আমার সাথে গাছের চারা এনে,বৃক্ষরোপন সংশ্লিষ্ট কাজে সহযোগিতা করে পুরো বিদ্যালয়ের চারপাশে বৃক্ষরোপন করেছে। আমরা আমাদের বিদ্যালয়ের সামনে অবস্থিত চিত্রা নদীর পাড়ে,বিদ্যালয়ের পিছনের রাস্তার পাশে,বিদ্যালয়ের বাগানে, ফলজ,বনজ এবং ঔষধি বৃক্ষের চারা রোপন করেছি। সবুজে ভরে উঠুক বাংলাদেশের প্রতিটি অঞ্চল। বন্ধুত্ব দৃঢ় হোক সহযোগিতার বন্ধনে।

গ্রুপের সদস্য শাহিদা সুরাইয়া পান্না  বলেন, বন্ধুদের  উদ্যোগের সঙ্গে যুক্ত হতে আমিও দু’টি গাছের চারা লাগিয়েছি। আমি আমার বাড়িতে  টবে লাগিয়েছি। 

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন