সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ মোকাবেলায় প্রয়োজন নি:শর্ত জাতীয় ঐক্য : ন্যাপ মহাসচিব

115

 

 

সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ মোকাবিলায় নিঃশর্ত জাতীয় ঐক্যে প্রতিষ্ঠার আহবান জানিয়ে বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া বলেন, সকল জাতীয় এ সংকটে সকল রাজনৈতিক দলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। এর জন্য প্রয়োজন নিঃশর্ত জাতীয় ঐক্য। আর সেই ঐক্য প্রতিষ্ঠায় সরকারকেই মূখ্যভূমিকা পালন করতে হবে।

 

তিনি বলেন, আজকের সঙ্কটপূর্ণ রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে দোষারোপের রাজনীতির অপসংস্কৃতি থেকে আমাদের বেরিয়ে আসতে হবে। দোষারোপের রাজনীতি দিয়ে জঙ্গিবাদ উগ্রবাদ দমন করা যাবে না। এতে তাদের লালন পালন হবে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কিংবা সেনাবাহিনী দিয়েও জঙ্গিবাদ দমন সম্ভব নয়। জঙ্গিবাদ দমনে গণতান্ত্রিক পরিবেশ দরকার। জাতীয় ঐক্য দরকার।

 

সোমবার নয়াপল্টনের যাদু মিয়া মিলনায়তনে গুলশান হলি আর্টিসানে নৃশংস জঙ্গি হামলার তৃতীয় বার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশ যুব ন্যাপ আয়োজিত স্মরণসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

 

ন্যাপ মহাসচিব বলেন, দেশের অধিকাংশ রাজনৈতিক দলকে উপেক্ষা করে কোনো সংকট সমাধান করা সম্ভব হবে না। দু:খজনক হলেও সত্য আমরা এখনও জাতীয় ঐক্য প্রতিষ্ঠা করতে পারিনি। এখনও আমরা দোষারোপের রাজনীতি অব্যাহত রেখেছে। কিন্তু দোষারোপের রাজনীতি দিয়ে জাতীয় সংকটের সমাধান করা যাবে না।

 

তিনি বলেন, ‘জাতীয় ঐক্যে‘ প্রতিষ্ঠা করতে না পারলে সমগ্র জাতির প্রত্যাশা ও আকাঙ্খাকে উপেক্ষার দায় শাসকগোষ্টি এড়াতে পারবে না। লাখো শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত বাংলাদেশ যখন অস্তিত্বের গভীর সংকটে নিপতিত, দেশবাসী যখন আতঙ্কিত তখন জাতির মনে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে দেশ গঠনে, সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ আর দুর্নীতি দমনে কবে প্রতিষ্ঠিত হবে জাতীয় ঐক্য।

 

যুব ন্যাপ’র সমন্বয়কারী বাহাদুর শামিম আহমেদ পিন্টুর সভাপতিত্বে ও যুগ্ম সমন্বয়কারী আবদুল্লাহ আল কাউছারীর সঞ্চালনায় আলোচনায় অংশগ্রহন করেন এনডিপি মহাসচিব মো. মঞ্জুর হোসেন ঈসা, ন্যাপ ভাইস চেয়ারম্যান কাজী ফারুক হোসেন, স্বপন কুমার সাহা, যুগ্ম মহাসচিব মো. নুরুল আমান চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. কামাল ভুইয়া, নগর সভাপতি মোঃ শহীদুননবী ডাবলু, যুগ্ম সম্পাদক মো. শামিম ভুইয়া, মহিলা সম্পাদিকা সাদিয়া ইসলাম ইমন, যুব নেতা জিল্লুর রহমান, আবদুল্লাহ আল-মাসুম, আবদুর রহিম বাদশাহ, এইচ.এম. মেহেদী হাসান প্রমুখ।