ফেরদৌসের পর এবার একই অভিযোগে কাঠগড়ায় অক্ষয় কুমার

149
gb

ভারতের লোকসভা নির্বাচনের প্রচারে অংশ নিয়ে তুমুল বিতর্কে জড়িয়েছিলেন বাংলাদেশি চিত্রতারকা ফেরদৌস আহমেদ।

এক রকম চাপের মুখে ভারত ছাড়তে হয় তাকে। ব্ল্যাক লিস্টের তকমা কপালে জোটে তার।

অন্য দেশের নাগরিক কীভাবে ভারতের নির্বাচনী প্রচারে অংশ নেয় সেই বিতর্ক চলতে থাকে দেশটির রাজনীতির মাঠে। এ বিষয়ে কংগ্রেসকে একহাত নিতে দেখা গেছে বিজেপির।

এবার সেই বিতর্কে যুক্ত হলেন বলি অভিনেতা অক্ষয় কুমারের নাম। একই অভিযোগ এলো তার বিরুদ্ধে।

মুম্বাইয়ে অক্ষয়ের স্ত্রী টুইঙ্কেল খান্নাকে ভোট দিতে দেখা গেলেও অক্ষয়ের দেখা মেলেনি। এর পরই জানা গেছে আসল সত্য।

ভারতের ভোটারই নন অক্ষয় কুমার! কারণ তিনি ভারতীয় নাগরিকই নন। পাসপোর্ট অনুযায়ী তিনি একজন কানাডিয়ান!

এর পরই অক্ষয়কে নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়।

সম্প্রতি দেশটির জাতীয় নির্বাচন চলাকালীন নরেন্দ্র মোদির একটি অরাজনৈতিক সাক্ষাৎকার নিয়েছিলেন অক্ষয় কুমার। সেখানে ভোট দিতে ভারতীয়দের আহ্বান জানান অক্ষয়।

এ বিষয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রশ্নবাণে জর্জরিত অক্ষয়- যে নিজেই ভোট দিতে পারেন না তিনি কী করে অন্যকে ভোট দিতে আহ্বান জানান!

কংগ্রেস থেকে প্রশ্ন তোলা হয়, অক্ষয় ভিনদেশি হলে কী করে নরেন্দ্র মোদির সাক্ষাৎকার নেন ও ভারতের নির্বাচন বিষয়ে কথা বলেন!

এসব সমালোচনার জবাবে ও নিজের নাগরিকত্ব বিষয়ে অক্ষয় কুমার টুইট করে জানান, ‘আমার নাগরিকত্ব নিয়ে হঠাৎ এত আলোচনা কেন? আমি কখনও আমার কানাডিয়ান পাসপোর্ট গোপন রাখিনি বা অস্বীকার করিনি। আমি গত সাত বছরে কানাডাতে যাইওনি। আমি ভারতে কাজ করি এবং ভারতেই আমার কর পরিশোধ করি।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি সত্যিই হতাশ যে আমার নাগরিকত্ব ইস্যু নিয়ে প্রতিনিয়ত অপ্রয়োজনীয় বিতর্ক হচ্ছে। এটি একটি ব্যক্তিগত, আইনি ও অরাজনৈতিক বিষয়। ’

নিজের ভারতপ্রীতির প্রমাণ দিতে গিয়ে অক্ষয় বলেন, ‘এত বছরে কাউকে আমার দেশপ্রেমের প্রমাণ দিতে হয়নি। আমি বিশ্বাস করি, ভারতকে আরও শক্তিশালী করে তুলতে আমার পক্ষে যা যা সম্ভব তাই করব আমি।’

প্রসঙ্গত বলিউড শিল্পে অক্ষয় কুমার অন্যতম এক সফল অভিনেতা। ১৯৯১ সালে ‘সুগন্ধ’ সিনেমা দিয়ে বলিউডে তার যাত্রা শুরু হয় তার। বলতে গেলে বলিউডে মার্শাল আর্ট অ্যাকশনকে জনপ্রিয় করে তোলেন এ তারকা।

এর পর মহড়া, খিলাড়ি, মি. অ্যান্ড মিসেস খিলাড়ি, রুস্তমের মতো অনেক ব্লকবাস্টার হিট সিনেমা উপহার দেন এ অভিনেতা।

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More