প্রধানমন্ত্রীকে গণসংবর্ধনা দেবে আওয়ামী লীগ

3,103
gb

জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭২তম অধিবেশন শেষে দেশে ফেরার সময়ে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনাকে সংবর্ধনা দেবে আওয়ামী লীগ। আগামী ৭ অক্টোবর তাঁর দেশে ফেরার কথা রয়েছে।

আজ মঙ্গলবার আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমণ্ডিস্থ রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক যৌথ সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান দলের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

আওয়ামী লীগের সঙ্গে সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক, ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এবং ঢাকা মহানগরের সকল দলীয় সংসদ সদস্যদের সঙ্গে এই যৌথ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘আমরা আশা করছি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী ৭ অক্টোবর সকাল সাড়ে ১০টায় সিলেট হয়ে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করবেন। এ সময়ে আওয়ামী লীগ ও দেশবাসী এবং বিশিষ্ট নাগরিকরা বিমানবন্দরে উপস্থিত হয়ে শেখ হাসিনাকে সংবর্ধনা জানাবেন। ’

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিমানবন্দর থেকে গণভবন পর্যন্ত রাস্তার দুই পাশে দাঁড়িয়ে প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানানো হবে। গণসংবর্ধনাকালে জনদুর্ভোগ যাতে না হয় সে জন্য দলীয় নেতাদের বিষয়টি মনিটর করতে হবে।

তিনি বলেন, জাতিসংঘে প্রধানমন্ত্রী দেশের এবং আমাদের মাথা উঁচু করেছেন। বিশ্বের কাছে প্রধানমন্ত্রী এখন মানবিক নেত্রী। জাতিসংঘে প্রধানমন্ত্রী যে ৫ দফা দাবি তুলে ধরে বক্তব্য রেখেছেন তা বিশ্বব্যাপী আলোড়িত হয়েছে।

বিশ্বব্যাপী তাঁর অবদানকে স্মরণীয় করে রাখতে তাকে সংবর্ধনা দেয়ার প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে।

বৈঠকে আওয়ামী লীগ সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ড. আব্দুর রাজ্জাক, দলের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, ডা. দীপু মনি, অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক ও আবদুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী ও এনামুল হক শামীম, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অ্যাডভোকেট আফজাল হোসেন, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দি, বন ও পরিবেশ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক সাদেক খান, স্বেচ্ছাসেবক লীগ সাধারণ সম্পাদক পংকজ দেবনাথ, যুব মহিলা লীগ সভাপতি নাজমা আক্তার, ছাত্রলীগ সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ এবং ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগ সভাপতি বায়েজিদ আমহেদ খান উপস্থিত ছিলেন।

জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে যোগ দিতে প্রধানমন্ত্রী গত ১৭ সেপ্টেম্বর নিউ ইয়র্কে পৌঁছান। ২১ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে বাংলায় বক্তব্য দেন তিনি। পাশাপাশি বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সভা ছাড়াও বেশ কয়েকজন সরকার ও রাষ্ট্রপ্রধানের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে অংশ নেন প্রধানমন্ত্রী। সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে বক্তৃতায় মিয়ানমারের রোহিঙ্গা সংকট মোকাবেলায় ৫ দফা দাবি বিশ্ব সম্প্রদায়ের কাছে তুলে ধরেন শেখ হাসিনা।

অধিবেশন শেষে ২২ সেপ্টেম্বর নিউ ইয়র্ক থেকে ভার্জিনিয়ায় যান তিনি। সেখানে যাওয়ার পর হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে ২৫ সেপ্টেম্বর একটি হাসপাতালে তার পিত্তথলিতে অস্ত্রোপচার হয়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এখন লন্ডনে অবস্থান করছেন। আজ মঙ্গলবার সকালে (বাংলাদেশ সময় বিকেল) লন্ডন পৌঁছেছেন তিনি।