ফকিরহাটের শিশুনৃত্য শিল্পি সৌমিতা দাস দিশা এখন বেতাগার অহংকার

22

পি কে অলোক,ফকিরহাট। |
বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলার বেতাগা এলাকার গুনি শিশু নৃত্য শিল্পি সৌমিতা দাস দিশা এখন বেতাগার অহংকারে পরিনত হয়েছে। তার নৃত্য কবিতা আবৃতি গান ও সাংস্কৃতির একাধিক প্রতিভা যেন সকল বিচারকদের মনকে জয় করে এক অনন্য শিক্ষরে পৌঁছে দিয়েছে। তার এই প্রতিভার ধারা উত্তর উত্তর বৃদ্ধি পাবে বলে সুধিজনের অভিমত।
জানা গেছে, বেতাগা গ্রামের দুলাল দাস এর কন্যা ও বেতাগা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেণীর মেধাবী ছাত্রী সৌমিতা দাস দিশা খুব ছোট্ট বেলা হতে নৃত্য কবিতা আবৃতি গান ও সাংস্কৃতিকমনা পরিবেশে বেড়ে উঠে। খুব ছোট বেলায় সে যখন হাটি হাটি করে পা ফেলে তখন হতে মায়ের কোলে চড়ে নৃত্যের প্রতি মনোযোগী হয়ে পড়ে। মা চম্পা রানী দাস কন্যাকে একজন বড় মাপের নৃত্য শিল্পি হিসাবে গড়ে তোলার চেষ্টা করেন। কিন্তু সে বড় মাপের নৃত্য শিল্পি না হলেও তার একাধিক প্রতিভা যেন সকলের মন-কে জয় করতে সক্ষম হয়েছে। এত অল্প বয়সে এত গুলি সনদ ক্রেষ্ট ও পুরস্কার পেয়ে সে যে এত উপরে উঠবে তা কেউ কল্পনাও করতে পারেনী। মধ্যবৃত্ত পরিবারের কন্যা হওয়া সত্তেও এত গুনের অধিকারী যেন সকলের মনকে আকৃষ্ট করবে। তার নৃত্য কবিতা আবৃতি আর গান যেন সকলের হৃদয়ে হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছে। সুত্র মতে সৌমিতা দাস দিশা ইতিমধ্যে বেশ কয়েকটি নামী-দামী শিল্পগোষ্টি হতে পুরস্কার পেয়ে বেতাগার গর্ব হিসাবে সুনাম অর্জন করেছে। তার মধ্যে বাংলাদেশ নৃত্য শিল্পি সংস্থা খুলনা বিভাগীয় কমিটি-২০১৭ হতে দ্বিতীয় পুরস্কার, জাতীয় শিশু পুরস্কার প্রতিযোগীতা-২০১৯-তে উপজেলা শ্রেষ্ট, লোকনৃত্য প্রতিযোগীতায় দ্বিতীয়, বাগেরহাট শিশু একাডেমি বাগেরহাট হতে জাতীয় শিশু পুরস্কার প্রতিযোগীতায় তৃতীয়, আন্তঃ প্রাথমিক বিদ্যালয় ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগীতায় জেলা পর্যায়ে নৃত্যতে তৃতীয় ও উপজেলা আন্তঃ প্রাথমিক বিদ্যালয় ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগীতায় সাধারন নৃত্যে ১ম স্থান অর্জন করে। এছাড়া জাতীয় পর্যায়ে অংশ গ্রহন করে সে একাধিক পুরস্কারে ভুয়ষী প্রসংশা পাওয়ার গৌরব অর্জন করেছে।

মন্তব্য
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More