রাজনগরে সাংবাদিকের উপর সন্ত্রাসী হামলায় ৩দিনের কর্মসূচির ডাক

247
gb
মৌলভীবাজার প্রতিনিধি :||

মৌলভীবাজারের রাজনগর প্রেসক্লাবের কোষাধ্যক্ষ দৈনিক যায়যায়দিন ও সিলেটের দৈনিক উত্তরপূর্ব পত্রিকার রাজনগর প্রতিনিধি মো. ফরহাদ হোসেনের উপর সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে।

রবিবার সন্ধ্যা রাত সাড়ে ৬টায় রাজনগর বাজারে সন্ত্রাসী হামলায় তিনি গুরুতর আহত হন। আহত অবস্থায় তাকে রাজনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

খবর পেয়ে রাজনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শ্যামল বণিক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এব্যাপারে রাজনগর থানায় মামলা করা হয়েছে।
এদিকে এ ঘটনায় রাজনগর প্রেসক্লাব তিন দিনের প্রতিবাদ কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।
মামলার সূত্রে জানা যায়, গত অক্টোবর মাসে দূর্গা পূঁজার শেষে উপজেলার পাঁচগাঁও ইউনিয়নের পাঁচগাঁও বাজারে কয়েকটি দোকান ভাংচুর ও লুট করা হয়। এনিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত পক্ষ থানায় মামলা করলে বিভিন্ন পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়। ওই ঘটনায় রাজনগর প্রেসক্লাবের কোষাধ্যক্ষ দৈনিক যায়যায়দিন ও সিলেটের দৈনিক উত্তরপূর্ব পত্রিকার রাজনগর প্রতিনিধি মো. ফরহাদ হোসেন দৈনিক উত্তরপূর্ব পত্রিকায় গত ২৫ অক্টোবর ‘রাজনগরে দোকন ভাংচুর, ৪ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতির অভিযোগ’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হয়।

এদিকে গত রবিবার (২৫ নভেম্বর) সন্ধ্যা রাতে পাঁচগাঁওয়ের জালালপুর গ্রামের মৃত কাদির মিয়ার ছেলে শরিফ (২৭) ও আমিরপুর গ্রামের মৃত মাষ্টার আব্দুল হাই মঞ্জুর আলীর ছেলে কামরুজ্জামান হাম্মাদ (৩৬) ঘরগাঁও গ্রামের মৃত রুশন মিয়ার ছেলে রাসানসহ (২৬) ৭-৮ জন সন্ত্রাসী সাংবাদিক ফরহাদ হোসেনের ওপর হামলা চালিয়ে মারধর করে। এতে তিনি গুরুতর আহত হলে স্থানীয়রা উদ্ধার করে রাজনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এব্যাপারে সাংবাদিক ফরহাদ হোসেন রাজনগর থানায় লিখিত অভিযোগে দিয়েছেন।

এদিকে সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনায় রাতেই রাজনগর প্রেসক্লাবের সদস্যরা জরুরী বৈঠক করে নিন্দা প্রস্তাব গ্রহন করে কালো ব্যাজ ধারণ, প্রতীকি অনশন ও মানববন্ধনসহ তিন দিনের কর্মসূচী দেন। এছাড়াও সাংবাদিক ফরহাদ হোসেনের ওপর সন্ত্রাসী হামলায় মৌলভীবাজার প্রেসক্লাবের সভাপতি আব্দুল হামিদ মাহবুব, সাধারণ সম্পাদক সালেহ এলাহী কুটি, সাবেক সাধারণ সম্পাদক এসএম উমেদ আলীসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ তীব্র নিন্দা জানান।

রাজনগর ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শ্যামল বণিক বলেন, খবর পেয়ে সাংবাদিক ফরহাদ হোসেনকে হাসপাতালে গিয়েছিলাম। ঘটনাস্থলে পরির্দশন করেছি। এব্যাপারে থানায় মামলা হয়েছে। আমরা বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে দেখছি।