Bangla Newspaper

ইংল্যান্ডে অ্যালার্জিতে কিশোরীর মৃত্যুতে দুই বাংলাদেশি দোষী সাব্যস্ত

58

জিবি নিউজ24 ডেস্ক //

১৫ বছরের এক কিশোরীর মৃত্যুর ঘটনায় ইংল্যান্ডের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে একটি রেস্তোরাঁ পরিচালনাকারী দুই বাংলাদেশিকে অনিচ্ছাকৃত হত্যায় দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে। তাদের রেস্তোরাঁ থেকে খাবার খেয়ে এই কিশোরীর অ্যালার্জিতে আক্রান্ত হলে তার মৃত্যু হয় বলে অভিযোগ ছিল। তবে দোষী সাব্যস্ত হওয়া মোহাম্মদ আব্দুল কুদ্দুস (৪০) ও হারুন রশিদ (৩৮) তাদের বিরুদ্ধে আনা অনিচ্ছাকৃত হত্যার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

আদালতে তাদের বিরুদ্ধে অবহেলা জনিত কারণে কিশোরী মেগান লি’র মৃত্যু হয় অভিযোগ আনা হয়েছিল। এই সপ্তাহে দেওয়া রায়ে ম্যানচেস্টার ক্রাউন কোর্টের বিচারক দুই বাংলাদেশিকে দোষী সাব্যস্ত করেছেন।

ল্যাংকাশায়ারের ওসওয়াল্ডউইস্টলের রয়্যাল স্পাইস রেস্তোরাঁর মালিক কুদ্দস এবং তার কর্মচারী রশিদ। আদালতে বলা হয়েছে, ২০১৬ সালের ৩০ ডিসেম্বর রেস্তোরাঁ থেকে কেনা খাবার খেয়ে মেগান লি অ্যাকুইট অ্যাজমায় আক্রান্ত হন। খাবারের অর্ডার দেওয়ার সময় মেগানের বন্ধু উল্লেখ করেছিলেন যে, সে চিংড়ি ও বাদামে অ্যালার্জি রয়েছে। কিন্তু খাবার গ্রহণের দুই সপ্তাহ পর ব্রেন ডেমেজের কারণে মেগানের মৃত্যু হয়।

প্রসিকিউটর পিটার রাইট আদালতে বলেন, রেস্তোরাঁর রান্নাঘারে ব্যবস্থাপনায় ব্যর্থতা, অস্বাস্থ্যকর ও উপাদানের যথাযথ রেকর্ড না থাকায় এমন দুর্যোগ ঘটা ছিল সময়ের ব্যাপার।

আদালতে প্রমাণ হাজির করে রশিদ রেস্তোরাঁর ব্যবস্থাপক থাকার অস্বীকার করেন। তিনি দাবি করেন, তখন তিনি ডেলিভারি ড্রাইভার ছিলেন। আর ইংরেজিতে কথা বলতে না পারা কুদ্দুস বিচারের সময় কোনও প্রমাণ হাজির করেননি। তাদের আইনজীবী বলেন, মৃত্যুটি অপ্রত্যাশিত এবং আগে থেকে জানার কোনও উপায় নেই।

জুরিদের রায়ে দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পর বিচারক কুদ্দুস ও রশিদকে জামিন দিয়েছেন। ৭ নভেম্বর তাদের বিরুদ্ধে রায় ঘোষণা করা হবে। বিচারক বলেন, জামিন মঞ্জুর করার অর্থ এই নয় যে, আপনাদের নন-কাস্টডিয়াল সাজা দেওয়া হবে। আপনাদের কাস্টডিয়াল সাজার প্রস্তুত থাকতে হবে। কিন্তু আপাতত আপনাদের বাড়ি যেতে দিচ্ছি।

Comments
Loading...