পয়লা বৈশাখ বৈচিত্র্য নিয়ে আমাদের জীবনে বার বার আসে : বাংলাদেশ ন্যাপ

দেশবাসীকে বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা

359
gb

প্রেস বিজ্ঞপ্তি::

বাংলা নববর্ষ ১৪২৫ উপলক্ষে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ।

শুক্রবার গণমাধ্যমে প্রেরিত এক শুভেচ্ছা বার্তায় দলের চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গাণি ও মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া বলেন, ১লা বৈশাখ ১৪২৫, বাংলাদেশের মানুষ হৃদয় উৎসারিত আনন্দ হিল্লালে বাংলা নববর্ষ বরণ করবে। বাংলা নববর্ষের এই উৎসবে বাংলাদেশ ন্যাপ দেশ-বিদেশে অবস্থানরত বাঙ্গালি ও বাংলাদেশীদের জানায় আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।

তারা বলেন, জাতির জীবনে পয়লা বৈশাখ নুতন আঙ্গিক, রূপ, বর্ণ ও বৈচিত্র্য নিয়ে আসে বার বার। এ দিনে স্বজাতির লোকজ ঐতিহ্যের পরম্পরায় তার শিল্প, সাহিত্য, ভাষা, শিক্ষা, জ্ঞানচর্চা, আচরণবিধি, ধর্ম বিশ্বাস, সংগীত, সামাজিক উৎসব, খাদ্যাভ্যাস, ক্রীড়া মনন ও বুননের চালচিত্র ফুটে উঠে। দীর্ঘকাল ধরে গড়ে ওঠা আমাদের ভাষা-সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের অহঙ্কারকে বিদেশী আধিপত্যবাদী অপশক্তি ধূলিস্যাত ও খর্ব করার নানা ষড়যন্ত্র করেছে, কিন্তু ষড়যন্ত্রকারীরা কখনো সফল হতে পারেনি। পয়লা বৈশাখ আমাদের সেই গর্বিত ঐতিহ্যকেই আনন্দের মহাসমারোহে স্মরণ করিয়ে দেয়, জেগে ওঠে জাতির আত্মপরিচয়।

নেতৃদ্বয় বলেন, নানা ঘটনা ও দূঘর্টনার স্বাক্ষী ১৪২৪ সালের চৌকাঠ ডিঙ্গিয়ে ১৪২৫ সালের দুয়ারে উপস্থিত হয়েছি। গত বছরের দুঃখ, অবসাদ-ক্লান্তি, হতাশা-গ্লানিকে অতিক্রম করে নতুন উদ্যমে এগিয়ে যাওয়ার নির্দেশনা নিয়ে এসেছে নুতন বাংলাবর্ষ। বাংলা নববর্ষ আমাদের জাতীয় সংস্কৃতির অন্যতম অনুষঙ্গ। হাজার বছরের স্বজাতির সাংস্কৃতিক বিনির্মাণের পরিক্রমায় গণতান্ত্রিক বোধ ও চর্চা নিবিড়ভাবে সংশ্লিষ্ট। তাই আমাদের দীর্ঘ ঐহিতাসিক সংগ্রামে রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক অধিকারের নতুন মাত্রা অর্জনের মধ্য দিয়ে বাংলা নববর্ষের উৎসব পেয়েছে এক উদ্ভাসিত বর্ণিল আবহ।