রোগ-বালাই কম তাই বাম্পার ফলনের আশা

365
gb

এসএম সাইফুল ইসলাম কবির, বাগেরহাট: বাগেরহাটের চিতলমারীতে চলতি বোরো মৌসুমে প্রায় ৩০ হাজার একর জমিতে বোরো ধানের চাষ করা হয়েছে। রোপা বোরোধানে এপর্যন্ত রোগ বালাই কম দেখাগেছে। তাই প্রতিটি ধানের ক্ষেত যেন এক নয়নাভিরাম সবুজের সমাহার। আবহাওয়া অনুকুলে থাকলে এ বছর বেরো ধানের বাম্পার ফলন হবে। আর এ ফলন ঘরে তুলতে পারলে ধান বিক্রি করে মিটবে তাদের ধারদেনা। গত ২৯ মার্চ দুপুরে সরে জমিনে আলাপ কালে এমনটিই জানিয়েছেন এলাকার অনেক কৃষক।
স্থানীয় কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, এ বছর উপজেলার ৭ টি ইউনিয়নে মোট বøকের সংখ্যা ২১ টি। এরমধ্যে বড়বাড়িয়া বøকে এক হাজার ৯০১ একর, হাড়িয়ারঘোপ ৯২৬ একর, মাছুয়ারকুল এক হাজার ৮৭৭ একর, কলাতলা এক হাজার ৩৫৮ একর, রহমতপুর এক হাজার ২৯৬ একর, শৈলদাহ এক হাজার ৩০৯ একর, হিজলা এক হাজার ৯৯ একর, কুড়ালতলা এক হাজার ৩৩৩ একর, শান্তিপুর এক হাজার ১৯৭ একর, শিবপুর ৬১৭ একর, বড়বাক ৬১৭ একর, চিতলমারী দুই হাজার ৭৪ একর, শ্রীরামপুর ৩ হাজার ৩০৯ একর, রায়গ্রাম ৩ হাজার ৮০৩ একর, চরবানিয়ারী ৯৮৮ একর, খড়মখালী এক হাজার ১১১ একর, চরডাকাতিয়া ৯২৬ একর, সন্তোষপুর ৭৯০ একর, দড়িউমাজুড়ি এক হাজার ২২২ একর ও কচুড়িয়া ব্লকে ৯৬৩ একর মোট ২৯ হাজার ৪৩০ একর জমিতে বোরো ধানের চাষ করা হয়েছে। তারমধ্যে ২৮ হাজার ৬৬০ একর জমিতে হাইব্রিড, উফশী ৬৫২ ও স্থানীয় জাতের ধান ১১৮ একর জমিতে চাষাবাদ হয়েছে।
আড়–য়াবর্নী গ্রামের কৃষক রিয়াদমুন্সী, সনাতন বৈরাগী, নান্নু মিয়া, কুরমনির রোকামিয়া, শ্যাম পাড়ার আফজাল শেখ, আকবার শেখ, শ্রীরামপুরের হরেন মন্ডল, উদয়ন বালা পাটরপাড়ার রুহুল তালুকদার এবং শান্তি খালীর আউয়াল মুন্সী সহ ানেকে জানান, এ বছর চাষিরা সতর্স্ফুত ভাবে বোরোরচাষ করছে। তাই সারামাঠে এখন ধান আর ধান। তবে আবহাওয়া অনুকুলে থাকলে এ বছর বেরো ধানের বাম্পার ফলন হবে।
চিতলমারী উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা ঋতুরাজ সরকার জানান, বিগত বছর গুলোর তুলনায় ১৩৫.৮৫ একর বেশী জমিতে বোরো ধানের চাষ হয়েছে। বর্তমান কোন রোগ বালাই বা কোনো পোকার উপদ্রব নেই। আবহা অনুকুলে থাকলে বিগত বছরের তুলনায় এবছর বোরো ধানের বাম্পার ফলন হবে।