স্মিথ কাঁদলেন (ভিডিও)

456
gb

জিবিনিউজ ডেস্ক:: ব্যাট হাতে বাইশ গজে বোলারদের ওপর তার শাসন যে কোনো তরুণ ক্রিকেটারের জন্যই প্রেরণা। কিন্তু বল বিকৃতি কাণ্ডের পর প্রেরণার বেদি থেকে ছিটকে পড়েছেন সেই স্টিভ স্মিথ! অস্ট্রেলিয়ার সাবেক অধিনায়ক এখন কলঙ্কের নাগপাশে বন্দী। চারপাশ থেকে ধেয়ে আসছে সমালোচনা, ধিক্কার আর স্মিথ নিজেও তো পুড়ছেন মর্মযাতনায়।

আগে থেকেই ধারণা করা হচ্ছিল দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে ফিরে আসার পর সিডনিতে পৌঁছে মিডিয়ার মুখোমুখি হবেন এবং বল টেম্পারিং নিয়ে কথা বলবেন কেলেঙ্কারিতে জড়িত অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়কত্ব থেকে সদ্য বরখাস্ত হওয়া স্টিভ স্মিথ। অবশেষে সেটাই হলো, সিডনিতে অসি মিডিয়ার মুখোমুখি হয়ে টেম্পারিং ঘটনায় জড়িত থাকার জন্য কান্না জড়িত কণ্ঠে জাতির কাছে ক্ষমা চাইলেন। একই সঙ্গে জানালেন, সারা জীবন এই ঘটনা তাকে পোড়াবে।

কেপটাউন টেস্টে বল বিকৃতি কাণ্ডের হোতা হিসেবে আন্তর্জাতিক ও ঘরোয়া ক্রিকেটে ১২ মাসের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছেন স্মিথ ও ওয়ার্নার। ৯ মাসের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছেন ব্যানক্রাফট। শিরিষ কাগজ দিয়ে বল বিকৃতির পরিকল্পনাকারী হিসেবে প্রথমে উঠে এসেছিল ওয়ার্নারের নাম। কিন্তু মাঠের ভেতর অধিনায়কত্ব হারালেও স্মিথ যেন মাঠের বাইরেও নেতৃত্ব দিতে চাইলেন! সব দায় তুলে নিলেন নিজের কাঁধে।

সিডনি বিমানবন্দরে সংবাদ সম্মেলনে বসবেন তা পূর্ব নির্ধারিতই ছিল। খসড়া বক্তব্যও তাই তৈরি করে রেখেছিলেন স্মিথ। সংবাদমাধ্যমের সামনে সেই বক্তব্য পাঠের সময়ই কেঁদে ফেলেন ‘পরবর্তী ব্র্যাডম্যান’ তকমা পাওয়া এ ব্যাটসম্যান। সবার আগে সতীর্থ থেকে ভক্তকুলের কাছে ক্ষমা চেয়ে স্মিথের বক্তব্য, সতীর্থ থেকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে থাকা ভক্তকুল এবং সব অস্ট্রেলিয়ান যারা আমার ওপর হতাশ ও রাগান্বিত সবার কাছেই দুঃখ প্রকাশ করছি।

এ সময় অঝোর ধারায় কান্নায় ভেঙে পড়েন স্মিথ। কান্নার কারণে কথাই বলতে পারছিলেন না। চোখের পানিতে ভেসে যাচ্ছিল তার মুখমন্ডল। চোখের পানিতে মুখ ভাসিয়ে কান্নাজড়িত কণ্ঠেই তিনি বলেন, অস্ট্রেলিয়া দলের একজন অধিনায়ক হিসেবে বিষয়টা পুরোপুরি পরিষ্কার করতে চাই। আমিই এ ঘটনার দায় পুরোপুরি নিজের ওপর নিতে চাই। বিচার-বুদ্ধিতে আমি বড় ধরনের একটি ভুল করেছি। এ কারণে পরবর্তী সবগুলো ঘটনাই আমি গ্রহণ করে নিতে চাই। এটা নেতৃত্বের ব্যর্থতা এবং অবশ্যই সেটা আমার নেতৃত্বের।

বল বিকৃতির এই ঘটনায় অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটের ভাবমূর্তি ভীষণভাবে ক্ষুণ্ন হয়েছে। দেশের সাবেক ক্রিকেটারেরা তো বটেই অন্যান্য দেশের সাবেকরাও সমালোচনা করেছেন স্মিথদের। এ ক্ষতি পুষিয়ে দিতে বদ্ধপরিকর স্মিথের বক্তব্য, আমার ভুলের জন্য যে ক্ষতি হয়েছে তা পুষিয়ে দিতে যথাসাধ্য সবকিছুই করব। এখান থেকে ভালো কিছু ঘটলে, কেউ শিক্ষা নিলে, আশা করি পরিবর্তনের পথে হাতিয়ার হতে পারব। আমি জানি বাকি জীবনভর এটা নিয়ে অনুশোচনা করতে হবে। পুরোপুরি ভেঙে পড়েছি। আশা করি সময়ের সঙ্গে হারানো সম্মান আর ক্ষমাও পাব।

ভিডিও দেখুন :