চাঁপাইনবাবগঞ্জে স্কুল ছাত্রীকে হত্যা চেষ্টার প্রতিবাদে ও শাস্তি দাবীতে মানববন্ধন

স্মারকলিপি প্রদান

307
gb

জাকির হোসেন পিংকু, চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি: চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরের কামাল উদ্দীন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ ¤্রণেীর ছাত্রী ও শহরের হুজরাপুর রেলবাগান পাড়ার আব্দুস সামাদের কন্যা সাথী খাতুনকে (১৩) ছুরিকাঘাতে হত্যা চেষ্টার প্রতিবাদে এবং ঘটনায় দায়ী একই এলাকার বখাটে মনিরুলের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি দাবীতে মানববন্ধন হয়েছে। বুধবার বেলা ১১টায় জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে দেড় ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধনে অংশ নেয় সাথীর স্কুল ও শহরের অনান্য স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষার্থী,ম্যানেজিং কমিটি সদস্য,অভিভাবক, শিক্ষকদের বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এবং এলাকাবাসী। মানববন্ধন শেষে স্থানীয় সাংসদ,জেলা প্রশাসক.চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট,পুলিশ সুপার,আইনজীবি সমিতি সভাপতি বরাবর সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক,শিক্ষার্থী,কর্মচারী ও অভিভাবকদের পক্ষে বখাটের শাস্তি দাবীতে স্মারকলিপি দেয়া হয়। মানববন্ধনে বক্তব্য দেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ শিক্ষক-কর্মচারী কল্যাণ সমিতি সভাপতি হাসিনুর রহমান,সেক্রেটারী শফিকুল ইসলাম,শিক্ষক-কর্মচারী কল্যাণ তহবিল সেক্রেটারী আসলাম কবীর, কামাল উদ্দীন বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটি সদস্য সাইফুল মতিন,প্রধান শিক্ষক খালেদা বেগম.১০ শ্রেণী শিক্ষার্থী সায়িদা আফরিন,সাথীর পিতা আব্দুস সামাদ,এলাকাবাসী শাহীন আলম সহ অনেকে। বক্তারা বলেন,পারিবারিক পূর্বকত্রুত্রার জেরে পোষাক পরে স্কুল যাবার পথে সাথীকে গত ১৪ মার্চ সকালে প্রকাশ্যে দিবালোকে রাজপথে হত্যাচেষ্টার ঘটনায় শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিয়ে সংশয় সৃষ্টি হয়েছে। ঘটনায় অভিযুক্ত মনিরুল (২৬) জামিনে বেরিয়ে এলে আবারও অঘটন ঘটাতে পারে এমন আশংকাও রয়েছে। সাথীর দরিদ্র পিতার পক্ষে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে গুরুতর আহত অবস্থায় দু’সপ্তাহ ধরে চিকিৎসাধীন সাথীর খাদ্যনালী ছেঁড়া ও অনান্য জখম অঙ্গের সুচিকিৎসা করানো সম্ভব নয়। তাই চিকিৎসা নিয়েও চিন্তিত তাঁর পরিবার। এমতাবস্থায় বিষয়গুলির প্রতি সংশ্লিষ্ট মহলের দৃষ্টি আকর্ষন করেন বক্তরা।