হরিণাকুন্ডুতে ভিজিডির চাল পাচারের সময় দুই কর্মচারী আটক

208
gb

ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ
ঝিনাইদহের হরিণাকু-ুতে ভিজিডির ৫ বস্তা চাল পাচারের সময় ভায়না ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোক্তা শিশির ও আদায়কারী মানোয়ার হোসেনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার রাতে ভায়না ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয় থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। হরিণাকু-ু থানার ওসি কে.এম শওকত হোসেন জানান, ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ের গুদামে রক্ষিত অসহায় ও দুস্থ্য মানুষের মাঝে সরকার কর্তৃক বিনা মূল্যে বিতরণের জন্য ভিজিডির ৭ বস্তা চাল ছিল। এই চাল ইউনিয়ন পরিষদের উদ্দ্যোক্তা শিশির ও ট্যাক্স আদায়কারী মানোয়ার হোসেন চুরি করে নিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয় পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এস.আই কামরুজ্জামান হাতেনাতে গ্রেফতার করে। তবে ভায়না ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ছমির উদ্দীন বলেন, সোমবার হরিণাকুন্ডু উপজেলা আইনশৃংখলা কমিটির সভায় জোড়াদহ পুলিশ ক্যাম্পের এসআই কামরুজ্জামানের বিরুদ্ধে আমি বক্তব্য রাখার কারণে তিনি আমার দুই কর্মচারী ফাসিয়ে দিয়েছেন। তিনি অভিযোগ করেন, আমি আওয়ামীলীগের রাজনীতি করি। পুলিশ যদি জনপ্রতিনিধিদের পেছনে লাগে তবে কি ভাবে আমরা রাজনীতি করবো। চেয়ারম্যান ছমির উদ্দীন অভিযোগ করেন জোড়াদহ পুলিশ ক্যাম্পের এসআই কামরুজ্জামান সাধারণ মানুষকে জামায়াত বিএনপি সাজিয়ে গ্রেফতার বানিজ্য করছেন। তার বিরুদ্ধে আইনশৃংখলা কমিটির সভায় আমি বক্তব্য দেওয়ার কারণে তিনি ক্ষুদ্ধ হয়ে এই কাজ করেছেন। বিষয়টি নিয়ে জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম জানান, বিষয়টি তদন্তের জন্য উক্ত ইউনিয়নের দায়িত্বপ্রাপ্ত ট্যাগ অফিসারকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে এ ঘটনায় কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। বিষয়টি সরেজমিনে গেলে বেশ কয়েকজন এলাকাবাসী এ প্রতিনিধিকে জানান, চাল চুরির ঘটনাটি সঠিক। অন্যদিকে ইউনিয়ন পরিষদের কয়েকজন ইউপি সদস্য জানান, ঘটনাটি পুলিশের মিথ্যা ও সাজানো। এব্যাপারে হরিণাকু-ু থানায় গ্রেফতারকৃত ২ জনের বিরুদ্ধে পুলিশ বাদী একটি মামলা করেছে বলে ওসি জানান।