মহেশপুরের আলপনা ধর্ষণ ও হত্যা মামলায় দুই আসামীর মৃত্যুদন্ড হাইকোর্টে বহাল

510
gb

মহেশপুর থেকে আতিক রহমান
ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার সুর্য্যদিয়া গ্রামের শিশু আলপনা খাতুনকে ধর্ষণ ও হত্যার দায়ে দুই আসামির ফাঁসির রায় বহাল রেখেছে হাই কোর্ট। এ মামলায় ডেথ রেফারেন্স, জেল আপিল ও দুই আসামির আপিলের শুনানি শেষে বিচারপতি মো. রুহুল কুদ্দুস ও বিচারপতি ভীষ্মদেব চক্রবর্তীর হাই কোর্ট বেঞ্চ বৃহস্পতিবার এ রায় দেয়। দুই আসামি হলেন মহেশপুর উপজেলার সুর্য্যদিয়া গ্রামের মো. সাইফুল ইসলাম ও মো. আরিফ হোসেন। সাত বছর আগে জজ আদালতেও তাদের একই সাজার রায় হয়েছিল। হাই কোর্ট রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মনিরুজ্জামান রুবেল, সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল আবুল কালাম আজাদ খান, সৈয়দা সাবিনা আহমেদ, মারুফা আক্তার শিউলি। আসামিপক্ষে ছিলেন আইনজীবী এস এম শাহজাহান ও আফিল উদ্দিন। মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০০৮ সালে ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার সুর্য্যদিয়া গ্রামের সাইফুল ও আরিফ চকলেট দিয়ে ফুসলিয়ে মাঠে নিয়ে যায়। এরপর তারা জাম কুড়ানোর লোভ দেখিয়ে পাট ক্ষেতে নিয়ে সাত বছরের শিশু আলপনাকে ধর্ষণের পর হত্যা করে। ওই ঘটনায় আলপনার বাবা তোরাব আলী ২০০৮ সালের ২৬ জুন ঝিনাইদহের নারী-শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামলা করেন। বিচার শেষে ২০১১ সালে আদালত দুই আসামির ফাঁসির রায় দেয়। ওই রায়ের পর কারাগারে থাকা দুই আসামির ডেথ রেফারেন্স ও জেল আপিল শুনানির জন্য হাই কোর্টে আসে। এক মাস শুনানির পর বৃহস্পতিবার রায় দিল হাই কোর্ট।