বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আজ

539
gb

জিবিনিউজ24 ডেস্ক || জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আজ। মুক্তিযুদ্ধের সূচনালগ্নে ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চের কালরাতে পাকিস্তানি শাসকগোষ্ঠী বঙ্গবন্ধুকে গ্রেপ্তার করে পাকিস্তানে নিয়ে যায়। ৯ মাস মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে দেশ স্বাধীন হওয়ার পর পাকিস্তানের বন্দিদশা থেকে মুক্তি পেয়ে ১৯৭২ সালের এই দিনে লন্ডন-দিল্লি হয়ে দেশে ফিরে আসেন তিনি। বাঙালিকে পরাধীনতার শিকল থেকে মুক্ত করে একটি স্বাধীন দেশ এনে দেওয়ার লড়াইয়ে এ মহানায়কের দেশে ফেরার দিনটি এক অনন্য ক্ষণ।

দিবসটি উদ্‌যাপনে নানা কর্মসূচি ঘোষণা করেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দিয়েছেন।

বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে দীর্ঘদিনের পরাধীনতার শৃঙ্খল ভেঙে স্বাধীন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার দিকে বাঙালি জাতি এগিয়ে যায়। এরই ধারাবাহিকতায় ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ প্রথম প্রহরে বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণা করেন। সেই রাতেই বঙ্গবন্ধুকে পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর সদস্যরা গ্রেপ্তার করে পাকিস্তানে নিয়ে যায়। এরপর দীর্ঘ ৯ মাস মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়। এরপর আন্তর্জাতিক চাপে বঙ্গবন্ধুকে মুক্তি দেয় পাকিস্তান।

পাকিস্তানের কারাগার থেকে মুক্তি লাভের পর লন্ডন ও দিল্লি হয়ে বঙ্গবন্ধু ১৯৭২ সালের ১০ জানুয়ারি দুপুর ১টা ৪১ মিনিটে স্বাধীন দেশের মাটিতে ফেরেন। এদিন রাজধানীর তেজগাঁওয়ের বিমানবন্দর থেকে ধানমণ্ডির ৩২ নম্বর বঙ্গবন্ধুর বাড়ি পর্যন্ত ছিল মানুষের ঢল। জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু, তুমি কে আমি কে, বাঙালি বাঙালি, তোমার আমার ঠিকানা পদ্মা মেঘনা যমুনা—এসব স্লোগানে প্রকম্পিত হয় রাজধানী। স্বাধীন দেশের মাটিতে পা রেখে বঙ্গবন্ধু আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন। তাঁর চোখে ছিল পানি।

জনগণনন্দিত শেখ মুজিবুর রহমান সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে এক সমাবেশে বলেন, ‘যে মাটিকে আমি এত ভালোবাসি, যে মানুষকে আমি এত ভালোবাসি, যে জাতিকে আমি এত ভালোবাসি, আমি জানতাম না সে বাংলায় আমি যেতে পারব কি না। আজ আমি বাংলায় ফিরে এসেছি, বাংলার ভাইয়েদের কাছে, মায়েদের কাছে, বোনদের কাছে। বাংলা আমার স্বাধীন, বাংলাদেশ আজ স্বাধীন।’