লিবিয়ায় ২৬ বাংলাদেশী হত্যাকারী মানবপাচারকারীদের শাস্তি দিতে হবে : ন্যাপ

53
gb
5

লিবিয়ার মিসদাহ শহরে মানব পাচারকারী চক্রের হাতে ২৬ জন বাংলাদেশেীসহ ৩০ জন অভিবাসীকে নির্মমভাবে গুলি করে হত্যার ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়ে পাশাপাশি হত্যাকান্ডের শিকার ব্যক্তিদের শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা প্রকাশ করে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গানি ও মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া বলেছেন, লিবিয়ায় ২৬ বাংলাদেশীসহ অভিবাসীদের উপর ঠান্ডা মাথায় গণহত্যা চালানো হয়েছে। এ ঘৃণ্য হত্যাকান্ডে জড়িত অবৈধ মানব পাচারকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। এ জন্য লিবিয়ার সরকারসহ বিবাদমান সকল পক্ষকে এগিয়ে আসতে হবে।

শনিবার (৩০ মে) গণমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে নেতৃদ্বয় এ দাবী জানান।

তারা বলেন, ২৬ জন নিহতের ঘটনায় বেঁচে যাওয়া এক বাংলাদেশি ঘটনার যে বিবরণ দিয়েছেন এবং গণমাধ্যমের খবরেও সেসব কথা উঠে এসেছে। ৩৭ জন বাংলাদেশিসহ ৪০-৪২ জন মানুষকে জিম্মি করে মুক্তিপণ আদায়ের জন্য জড়ো করেছিল মানবপাচারকারী চক্র। এই চক্রকে গ্রেফতার করে বিচারের আওতায় আনার পাশাপাশি এর সঙ্গে জড়িতদের সবাইকে খুঁজে বের করতে বিভিন্ন দেশকে প্রয়োজনে একসঙ্গে কাজ করতে হবে। লিবিয়া থেকে বিভিন্ন সময় ফিরে আসা বাংলাদেশিরা জিম্মি ও মুক্তিপণ আদায়সহ নিপীড়নের নানা ঘটনার বর্ণনা দিয়েছেন।

নেতৃদ্বয় বলেন, লিবিয়া ও মধপ্রাচ্যের দেশগুলোসহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে অভিবাসী বাংলাদেশি শ্রমিকেরা এক চরম নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে দিন পার করছেন। করোনা মহামারিতে লাখ লাখ প্রবাসী বাংলাদেশি শ্রমিকের জীবনে অবর্ণনীয় দুর্দশা নেমে এসেছে। এদের এক বড় অংশের এখন কোনো কাজ নেই, খাবার নেই, অনেকের বাস করার মতো কোনো ব্যবস্থাও নেই। অভিবাসী হাজার হাজার শ্রমিক এখন ফেরারি হয়ে আতঙ্কের মধ্যে বেঁচে আছেন।

 

তারা আরো বলেন, অভিবাসী শ্রমিকদের স্বার্থ ও নিরাপত্তা বিধানের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের প্রবাসী ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ও দায়িত্বহীন ও অকার্যকরী ভূমিকা পালন করে এসেছে। বাংলাদেশের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়, দূতাবাসসহ শ্রমিকদের বিদেশে পাঠানোর সঙ্গে যুক্ত প্রতিষ্ঠান ও মানবপাচারকারীদের কারণে এখন কয়েক লাখ বাংলাদেশি অভিবাসী শ্রমিকেরা এক ভয়াবহ মানবিক বিপর্যয়ের মুখে পতিত হয়েছে।

 

নেতৃদ্বয় অনতিবিলম্বে মানবিক বিপর্যয়ের সম্মুখীন বাংলাদেশি অভিবাসী শ্রমিকদের নিরাপত্তা বিধান, তাদের খাদ্য, চিকিৎসা ও কর্মসংস্থান নিশ্চিত করার দাবি জানিয়ে আটক শ্রমিকদের মুক্ত করা এবং প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে বাংলাদেশিদের নিরাপদে দেশে ফিরিয়ে আনতে সরকার ও সংশ্লিষ্ট সবার প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানান।

 

একই সাথে নেতৃদ্বয় লিবিয়ায় নিহতদের জন্য গভীর শোক জানিয়ে আহতদের উপযুক্ত চিকিৎসা এবং তাদের পরিবারসমূহের পুনর্বাসনেরও দাবি জানিয়েছেন।

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন