আমাদের মুক্তিযুদ্ধ বিজয়ের প্রতীক বিজয় ফুল বুকে ধারন করুন

944
gb

মকিস মনসুর ||

বাংলাদেশের সুদীর্ঘ রাজনৈতিক ইতিহাসে শ্রেষ্ঠতম ঘটনা হলো ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধ। সশস্ত্র স্বাধীনতা সংগ্রামের এক ঐতিহাসিক ঘটনার মধ্য দিয়ে বাঙালি জাতির কয়েক হাজার বছরের সামাজিক রাজনৈতিক স্বপ্ন সাধ পূরণ হয় এ মাসে। বাঙালি জাতির সর্বশ্রেষ্ঠ অর্জন মুক্তিযুদ্ধের অবিস্মরণীয় গৌরবদীপ্ত চূড়ান্ত বিজয় এ মাসের ১৬ ডিসেম্বর অর্জিত হয়। স্বাধীন জাতি হিসেবে সমগ্র বিশ্বে আত্মপরিচয় লাভ করে বাঙালিরা। অর্জন করে নিজস্ব ভূখন্ড আর সবুজের বুকে লাল সূর্য খচিত নিজস্ব জাতীয় পতাকা। ভাষার ভিত্তিতে যে জাতীয়তাবাদ গড়ে উঠেছিল, এক রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের মাধ্যমে ঘোষিত স্বাধীনতা পূর্ণতা পায় এ দিনে। বাঙালির হাজার বছরের স্বপ্নপূরণ হবার পাশাপাশি বহু তরতাজা প্রাণ বিসর্জন আর মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে এই অর্জন হওয়ায় বেদনাবিধূর এক শোকগাথার মাসও এই ডিসেম্বর।এখানে উল্লেখ্য যে আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধে একটি পতাকার জন্য ও একটি মানচিত্রের জন্য যারা প্রাণ দিয়েছেন তাঁরা কোটি কোটি জনতার মাঝে বিজয়ী বেশে উজ্বল নক্ষত্র হয়ে বেঁচে আছেন l যদিও তাঁরা আমাদের মনন, মগজে ও চেতনায় জাগ্রত আছেন। তারপরেও শ্রদ্ধার একটু বহিঃপ্রকাশ এই বিজয়ফুল। বিজয়ফুল প্রবাসে বসবাসরত মুক্তিযোদ্ধাদের তাদের বীরত্বের কথা নতুন প্রজন্মকে বলার সুযোগ করে দিয়েছে। এ কর্মসূচির প্রধান লক্ষ্যই হচ্ছে, প্রবাসে নতুন প্রজন্মকে বাংলাদেশ এবং তার জন্ম-ইতিহাস সম্পর্কে জানানো। ব্রিটেনে বসবাসরত মুক্তিযোদ্ধারা দল-মত ভুলে গিয়ে একই কাতারে দাঁড়িয়ে পতাকার রঙে প্রস্ফুটিত বিজয়ফুলের মাহাত্ম্য বলতে গিয়ে তুলে আনছেন সঠিক ইতিহাস।একনজরে বিজয় ফুল:- বিজয়ফুল একটি ছোট্ট স্মারক, যা বুকে পরা হয়। বিজয়ফুল পরা হয় ১লা ডিসেম্বর থেকে ১৬ ডিসেম্বর।বিজয়ফুলের প্রধান লক্ষ্য মহান মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা প্রকাশ করা।”আর তাই আমাদের শহীদ মুক্তিযুদ্ধাদের স্মরণ ও নব প্রজন্মের সামনে সঠিক ইতিহাস তুলে ধরার মানসে ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়নে ১লা থেকে ১৬ই ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবসে “আমাদের মুক্তিযুদ্ধ বিজয়ের প্রতীক বিজয় ফুল বুকে ধারন করুন.. অন্যকে পরতে বলুন. জয় বাংলা. বাংলাদেশ চীরজীবি হোক..।।

লেখক  : বৃটেনের কমিউনিটি সংগঠক সাবেক ছাত্রনেতা ও টিভি সাংবাদিক মোহাম্মদ মকিস মনসুর আহমদ. যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের সদস্য. ইউকে ওয়েলস যুবলীগের সাবেক সভাপতি এবং জাস্টিস ফর বাংলাদেশ জেনোসাইড ১৯৭১ ইউকের কনভেনার এর দায়িত্ব পালন করছেন।