আমিরাতে ৫২বাংলা টিভির তৃতীয় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে দিনব্যাপি বর্ণাঢ্য  অনুষ্ঠানমালা অনুষ্ঠিত

9
gb
আমিনুল হক

প্রবাসিদের প্রেরিত রেমিটেন্সে ৫ শতাংশ প্রণোদনা বৃদ্ধি পেলে রেমিটেন্সের হার দ্বিগুণ হবে। সেই সাথে প্রতি সংসদীয় আসনে সাংসদকে পুরস্কার প্রদান করলে এ হার আরো বাড়বে বলে মন্তব্য করেছেন সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রবাসিরা। ২১ ফেব্রুয়ারি সংযুক্ত আরব আমিরাতে বিলেত থেকে প্রচারিত ৫২বাংলা টিভির ৩ বছরে পা উপলক্ষে দিনব্যাপি আয়োজিত অনুষ্ঠানের আলোচনায় এ কথা উঠে এসেছে।

সংযুক্ত আরব আমিরাতে ‘অভিবাসী অভিযাত্রায় তিন বছরে ৫২বাংলা’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে লন্ডন থেকে প্রচারিত অনলাইন চ্যানেল ৫২বাংলা টিভির তৃতীয় বর্ণাঢ্য প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠিত হয়েছে।

২১ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ সমিতি শারজাহের হলরুমে অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন ৫২ বাংলা টিভির বার্তা সম্পাদক লুৎফুর রহমান ও সংবাদপাঠিকা তিশা সেন। আরব আমিরাত এবং বাংলাদেশের জাতীয় সংগীতের মধ্য দিয়ে শুরু হওয়া অনুষ্ঠানে বায়ান্ন থেকে একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে নিহত সকল শহিদ এবং স্মরণে দাঁড়িয়ে ১ মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

প্রবাসে একপিঠে সুখ আছে আর অন্যপিঠে আছে বেদনায় নীল হওয়া শত প্রবাসীর হৃদয়ে রক্তক্ষরণ এবং স্বজন প্রিয়জন হারানোর বিয়োগব্যাথা। অন্যপিঠে আছে- লাখ লাখ  প্রবাসীর  নিরন্তর সংগ্রামে চোখ ধাধানো  উত্থান, সাফল্য ও সম্ভাবনার চিত্র। এছাড়া সততা সাহসিকতায় মানবিক বাংলাদেশকে প্রবাসে তুলে ধরার নানা আলোকিত দিক। সবমিলিয়ে  প্রবাসীরা  প্রতিনিয়ত অবদান রাখছেন বাংলাদেশের সমাজ-অর্থনীতি এমনকি রাজনীতিতে।

প্রবাসীদের কথা চিন্তা করেই অনুষ্ঠানকে তিনভাগে ভাগ করা হয়েছিল। প্রথম পর্বে ছিল সারাদিনব্যাপী মেডিকেল ক্যাম্প  দ্বিতীয় পর্বে ছিল প্রবাসীদের সুখ-দুঃখ নিয়ে গোলটেবিল আলোচনা এবং তৃতীয় পর্বে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও রাতের আপ্যায়ন।

অনুষ্ঠানে গোল টেবিল আলোচনায় প্রধান অতিথি এবং আলোচক ছিলেন বাংলাদেশ কন্সুল্যেট জেনারেল দুবাইয়ে কন্স্যাল জেনারেল মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন খান।

মধ্যপ্রাচ্যের প্রবাসীদের সমস্যা শীর্ষক আলোচনায় প্রবাসীদের করণীয় কী সে বিষয়ে আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন কন্সুল্যেটের প্রথম সচিব (শ্রম) ফকির মনোয়ার হোসেন, বাংলাদেশ সমিতি দুবাইয়ের আহবায়ক অধ্যাপক আব্দুস সবুর, বাংলাদেশ সমিতি শারজাহের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ইসমাইল গণি চৌধুরী, বাংলাদেশ বিজনেস কাউন্সিল দুবাইয়ের সহ সভাপতি মাহবুব আলম মানিক সিআইপি, সমিতির সহ সভাপতি শাহাদাত হোসেন, সাধারণ সম্পাদক শাহ মোহাম্মদ মাকসুদ, বাংলাদেশ বিজনেস কাউন্সিল দুবাইয়ের সাধারণ সম্পাদক নূর মোহাম্মদ, প্রবাসী সুনামগঞ্জ সমিতির প্রধান উপদেষ্টা হাজী শফিকুল ইসলাম।

এছাড়া আরো আলোচনা করেন  দুবাই চিড়িয়াখানার পরিচালক ড. রেজা খান, ব্রাইট কেয়ার প্রবাসি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের পরিচালক নেসার রেজা খান, সিলেট বিভাগ উন্নয়ন পরিষদ আমিরাতের আহবায়ক মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী, সাবেক যুগ্ম সম্পাদক সালেহ আহমদ, মৌলভীবাজার প্রবাসী ভিআইপি ক্লাবের সভাপতি হুমায়ুন রশীদ, সাধারণ সম্পাদক রাসেল আহমদ, মীর্জা আবু সুফিয়ান, এম আবুল হাসনাত সহ আরো অনেকে।

এ সময় আরব আমিরাতের কমিউনিটি নানা সংগঠনের পক্ষ থেকে প্রবাসীদের কল্যাণে ইতিবাচক সাংবাদিকতার জন্য ৫২ বাংলা টিভি আমিরাত টিমকে ফুলেল শুভেচ্ছায় অভিনন্দিত করা হয়।

অনুষ্ঠানে আগত দর্শকদের হাতে ফ্রি লটারির কূপন দেওয়া হয়। যাতে সচেতনতামূলক নানা শ্লোগান লেখা থাকে।  পরে দর্শকদের মধ্য থেকে ভাগ্যবান তিনজনকে পুরস্কৃত করা হয়। উল্লেখ্য এডভান্সড ট্রাভেলসের সৌজন্যে প্রথম পুরস্কার ছিল “দেশে আসা-যাওয়ার রিটার্ণ বিমান টিকেট”, মৌলভীবাজার প্রবাসী ভিআইপি ক্লাবের সৌজন্যে দ্বিতীয় পুরস্কার ছিল “একটি এলইডি টিভি” এবং আল মামুরা গ্রুপের সৌজন্যে তৃতীয় পুরস্কার ছিল “একটি স্বর্ণের আংটি”। এছাড়া প্রবাসীর চিঠি লেখা প্রতিযোগিতা এবং দেশে ক্যাসেটে কথা বলার প্রতিযোগিতায় আলাদা দলে বিজয়ী তিনজনকে  পুরস্কার দেওয়া হয়।

প্রথমপর্বে সারাদিনব্যাপি প্রবাসী শ্রমিকদের মেডিকেল ক্যাম্পের মাধ্যমে বিভিন্ন স্বাস্থ্যসেবা প্রদান করা হয়। পরে প্রবাসীদের উদ্দেশ্যে স্বাস্থ্য সেবা মূলক আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন মুক্তিযুদ্ধকালিন সময়ে ভারতে মুক্তিযোদ্ধাদের চিকিৎসা প্রদানকারি থাম্বে হাসপাতালের সিনিয়র ডাঃ বাণী কণ্ঠ নাথ।

শেষে মনোমুগ্ধকর অনুষ্ঠানে ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি’ গানের মধ্য দিয়ে সাংস্কৃতিক পর্ব শুরু হয়। একে একে পরিবেশন করা হয় ভাষা এবং মুক্তিযুদ্ধের জাগরণী গান। গান পরিবেশন করেন বাংলাদেশ শিল্পী সমিতি আমিরাতের প্রবাসী কণ্ঠশিল্পী জাবেদ আহমদ মাসুম, শিপন কর্মকার, জাবেদ সহ সমিতির অন্যান্য কণ্ঠশিল্পীরা।

অনুষ্ঠানে বই প্রদর্শনির পাশাপাশি প্রবাসিদের জীবনমান উন্নয়নে নানারকম অভিমত সাদাকাপগে লাল কালিতে লিখেন প্রবাসিরা।

আরব আমিরাতে এ যাবৎকালের সেরা কোন অনুষ্ঠান এমন মন্তব্য করেছেন অনুষ্ঠানে আসা সুধীজনেরা। সৃজনশীলতা, গুণগত মান এবং মন জাগানি এ অনুষ্ঠান অনেকদিন মন ভাল রাখবে বলেও জানিয়েছেন তারা। পুরো এ অনুষ্ঠানের সার্বিক তত্বাবধানে ছিলেন টিম ৫২ আমিরাতের লুৎফুর রহমান, তিশা সেন, জাবেদ আহমদ, আমিনুল হক। দৃষ্টিনন্দিত এ অনুষ্ঠান পরিচালনা করতে স্বেচ্ছাসেবী ছিলেন অনুপ সেন, রূপশ্রী সেন, আরশাদ হোসেন, আজিম উদ্দিন, সাইফুর রহমান ও তারেক আহমদ।

আগত সকল দর্শকদের নিয়ে কেক কেটে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে। অনুষ্ঠানের শেষে আগামিতেও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় পথ চলে প্রবাসনীদের পাশে থাকার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন ৫২ বাংলা টিভির পরিচালক ও বার্তা সম্পাদক এবং আমিরাত টিমের প্রধান লুৎফুর রহমান।

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন