প্রথমবারের মতো যুব বিশ্বকাপের ফাইনালে বাংলাদেশ

জিবিনিউজ 24 ডেস্ক //

এমন দিনে নাচতে নেই কোনো মানা, পুরনোকে ভেঙে নতুন উদ্যমে যুবারা গড়ল ইতিহাস। দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে প্রথমবারের মতো যুব বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠল তারা। এ যে ৩২ বছরের মধ্যে প্রথম এত বড় অর্জন।

১৯৮৮ থেকে শুরু হওয়া যুব বিশ্বকাপের মঞ্চে এতদিন বাংলাদেশের সর্বোচ্চ দৌড় ছিল সেমিফাইনাল খেলা। ২০১৬ সালে ঘরের মাঠে ওই প্রাপ্তির দেখা পেয়েছিল জুনিয়র টাইগাররা। এবার ওই অতীতকে ছাড়িয়ে এক লাফে কাটল ফাইনালের টিকিট।

পরিসংখ্যানের এই হিসেব বাদেও দিনটা ছিল শুধুই বাংলাদেশের। মাহমুদুল হাসান জয়ের দারুণ সেঞ্চুরিতে ভর করে কিউই যুবাদের ৬ উইকেটে হারানো সত্যিই চাট্টিখানি কথা না।

তাও আবার নিউজিল্যান্ডের দেওয়া ২১২ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে ৩৫ বল ও ৬ উইকেট হাতে রেখে জয়ের বন্দরে নোঙর করাও ছিল বেশ চমক জাগানিয়া।

পুরো ম্যাচের ক্ষণে ক্ষণে দৃশ্যপট বদলে যাওয়ার পরও বাংলাদেশ হাল ছাড়েনি। মাথা ঠাণ্ডা রেখে কঠিন সময়ও পার করেছে। এক পা দুই পা করে শেষ পর্যন্ত ইতিহাসের ঘরেও নাম লেখানো হলো। এখন আরও বড় ইতিহাস গড়ার অপেক্ষা।

আগামী ৯ ফেব্রুয়ারি পচেফস্ট্রুমে শিরোপা লড়াইয়ে নামবে ভারত ও বাংলাদেশ। অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ থেকে পাকিস্তানকে বিদায় করে ফাইনালে উঠেছিল সাবেক চ্যাম্পিয়নরা। প্রথম সেমিফাইনালে পাকিস্তানকে ১০ উইকেটে পরাজিত করে তারা। এখন দেখার অপেক্ষা কাঙ্ক্ষিত ট্রফিটা কার হাতে ওঠে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

নিউজিল্যান্ড অনূর্ধ্ব-১৯ দল: ৫০ ওভারে ২১১/৮ (মারিউ ১, হোয়াইট ১৮, লেলম্যান ২৪, লিডস্টোন ৪৪, ট্যাশকফ ১০, হুইলার-গ্রিনল ৭৫*, সানডে ১, ক্লার্ক ৭, ফিল্ড ১২, অশোক ৫*; শরিফুল ১০-২-৪৫-৩, শামীম ৬-১-৩১-২, রকিবুল ১০-৩-৩৫-১, তানজিম ১০-১-৪৪-০, মুরাদ ১০-১-৩৪-২, হৃদয় ৪-০-১৮-০)

বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল: ৪৪.১ ওভারে ২১৫/৪ (পারভেজ ১৪, তানজিদ ৩, মাহমুদুল ১০০, হৃদয় ৪০, শাহাদাত ৪০*, শামীম ৫*; ফিল্ড ৬-০-২৮-০, ক্লার্ক ৯-০-৩৭-১, হ্যানকক ৭-০-৩১-১, অশোক ১০-০-৪৪-১, ট্যাশকফ ১০-৫৭-১-০, হুইলার-গ্রিনল ২.১-০-১৩-০)

ফল: বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল ৬ উইকেটে জয়ী

ম্যাচসেরা: মাহমুদুল হাসান।

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন